ভাসান

সুলতানা শাহরিয়া পিউ

স্বপ্ন জাগিয়েছিলে কিশোরী চোখে
অনায়াসে উপড়ালে কর্তব্য দোহাইয়ে
স্যাটেলাইটের দৌলতে আজও তোমার
ভালো থাকার বড়াইয়ের খবর মেলে
ওটুকু জেনেই বরাবরের মত আমার
দেবু’দার পারুর স্বস্তিতে থাকার চেষ্টা!

সাধ হয়েছিল কুমারী পূজার আসনে বসতে
বলেছিলে ভিন্ন ধর্ম!
বড় হয়ে জেনেছি, প্রথম কুমারী পূজার
বালিকাত ভিন্ন ধর্মেরই ছিল!
তবে কেন বলতে আমায় তোমার দুর্গা?
আমি মানের ভানে জানাতাম অত শত
আচার অর্চনা পারব না বাপু! হেসে
প্রসাদের কোন ভেঙ্গে মুখে তুলে দিতে
তুমি কি সত্যিই ভালো আছ
আমার ভাসান দিয়ে দেবু’দা? এ যুগের
যুবক হলে কি পারতে প্রতিবাদী হতে ?
তোমায় কি বলব?
এ যুগের দূর্গাও দশভুজা হয়ে ওঠেনি
তবে সর্বংসহা হতে পেরেছে।