শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ে তুলেছে- মায়া

 

মো. দ্বীন ইসলাম :  গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় দুর্যোগ ব্যবস্থপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম এমপি বলেছেন শারদীয় দুর্গাপূজা বাঙালীর একটি অন্যতম উৎসব। সনাতন ধর্মাবলম্বীরা অত্যন্ত আড়ম্ভরপূর্ণভাবে এই উৎসবে অংশ নেন। তিনি বলেন, সমাজে এখনও দানব ও অসুর শক্তি শুভ শক্তিকে আঘাত করছে। এই অপশক্তির বিরুদ্ধে আমাদের সকলকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে।
তিনি বলেন, সমাজ ও পৃথিবীতে অপশক্তির বিরুদ্ধে শুভ শক্তির জয় হওয়ার জন্য সনাতন ধর্মাবলম্বীরা এই বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসবে দেবী দুর্গার কাছে প্রার্থনা জানাবেন। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একটি অসা¤প্রদায়িক স¤প্রীতির বাংলাদেশ গড়ে তুলেছে। এই স¤প্রীতিকে টিকিয়ে রাখা আমাদের সকলের দায়িত্ব।
মন্ত্রী বৃহস্পতিবার চাঁদপুুরের মতলব উত্তর উপজেলার বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শনকালে দূর্গাপুর পূজা মন্ডপে উপস্থিত ভক্ত ও সুধীজনদের উদ্দেশ্যে উপরোক্ত কথা বলেন। এ সময় মন্ত্রী বিভিন্ন পূজা মন্ডপের জন্য আর্থিক অনুদান প্রদান করেন।
ত্রাণ মন্ত্রীা বলেছেন, স্বাধীনতা সংগ্রামে এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় আমরা মুসলমানরা শুধু নয়, আমাদের সবধর্মের মানুষ হিন্দু বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান সকলে মিলেই কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বুকের রক্ত ঢেলে এ দেশ স্বাধীন করে গেছেন। বাংলাদেশ লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এবং এই বাংলাদেশে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলে যার যার অধিকার নিয়েই বসবাস করবে, তাদের ধর্মকর্ম পালন করবে।
মন্ত্রী আরো বলেন, এই দেশকে আমরা সকলে একসঙ্গে গড়ে তুুলতে চাই। বাংলাদেশ উন্নত হোক, সমৃদ্ধিশালী হোক, দারিদ্র্যমুক্ত এবং ক্ষুধামুক্ত বাংলাদেশ হোক, এটাই ছিল জাতির পিতার স্বপ্ন।
ত্রাণ মন্ত্রী মায়া বলেন, আজ আমরা আনন্দিত, সারা বাংলাদেশেই পুজা হচ্ছে এবং প্রতিবছরই পুজার সংখ্যা বাড়ছে। প্রায় ৩০ হাজারের বেশি মন্ডপে পুজা হচ্ছে। তিনি বলেন, আমাদের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সকলেই দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে এখানকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করার সব রকম প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। স্থানীয় জনগণও সহযোগিতা করে যাচ্ছেন।
তিনি সারা বাংলাদেশে পূজা অনুষ্ঠানে কর্মরতদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। তিনি এই উৎসব যাতে উৎসবমুখর পরিবেশে সম্পন্ন হয়, সেই কামনাও করেন।
দূর্গাপুর ইউপি চেয়ারম্যান দেওয়ান আবুল খায়েরের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন- ইউএনও শারমিন আক্তার, ভাইস চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম সরকার ইমন, আওয়ামীলীগ নেতা সুশান্ত কুমার ভৌমিক আকাশ, উপজেলা পূজা পরিষদেরন সাধারণ সম্পাদক শ্যামল চন্দ্র দাস।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন- যুবলীগের সভাপতি দেওয়ান জহির, সাধারণ সম্পাদক কাজী শরীফ, জহিরাবাদ ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি গাজী মুক্তার হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক তামজিদ সরকার রিয়াদ, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি রহমত উল্লাহ সরকার লিখন, যুবলীগ নেতা খোরশেদ আলম, শ্রমিকলীগ নেতা খোরশেদ আলম চৌধুরী’সহ আ.লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।