সনাতনী সমাজ সংস্কারে শারদাঞ্জলী ফোরামের কোন বিকল্প নাই –বন্দর ইউএনও পিন্টু বেপারী

 

বন্দর(আজকের নারায়নগঞ্জ):  বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পিন্টু বেপারীকে ম্যাগাজিন উপহার দেন বন্দর থানা শারদাঞ্জলী ফোরামের নেতৃবৃন্দ। বুধবার সকাল ১০টায় কলাগাছিয়া ইউনিয়নস্থ সাবদী কালী মন্দিরে বন্দর থানা শারদাঞ্জলী ফোরাম কর্তৃক প্রকাশিত ম্যাগাজিন বন্দর ইউএনও’র হাতে তুলে দেয়া হয়।

এ সময় বন্দর থানা শারদাঞ্জলী ফোরামের কর্মকর্তাদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতকালে বন্দর উপজেলা পিন্টু বেপারী বলেন,মায়ের প্রতিমা মাতৃরূপে প্রতিষ্ঠিত হোক ও স্বার্থিক পূজা হোক পূজার মুখ্য উদ্দেশ্য। শারদাঞ্জলি ফোরামের মাধ্যমেই দুর্গা পূজার আচার সংস্কার শিক্ষা লাভ করা যায় । এ সংঘটনের দ্বারা সারা দেশের পরিবর্তন আনা সম্ভব নয় সকলের সহযোগিতা করলেই তা সম্ভব। ভিন্ন একটি সন্মিলিত আন্দোলন পারে সনাতনী সমাজের অবক্ষয় থেকে জাতিকে মুক্ত করতে। মাত্রাতিক আলোকসজ্জা প্রতিমাকে কুরুচিপূর্ণ রূপে উপস্থাপন করাচ্ছে। পূজার নামে যুব সমাজে চলে সামাজিক অবক্ষয়। সনাতনী সমাজ সংস্কারে শারদাঞ্জলি ফোরামের কোন বিকল্প নাই।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন শারদাঞ্জলী কেন্দ্রীয় সহ-দপ্তর সম্পাদক কার্তিক সুত্রধর,নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি আশিষ কুমার দাস,বন্দর উপজেলা পুজা উদযাপন কমিটির সাধারন সম্পাদক শ্যামল বিশ্বাস,বন্দর উপজেলা শারদাঞ্জলী ফোরামের সভাপতি হরিসাহা,সাধারন সম্পাদক লোকনাথ সাহা,সাংগঠনিক সম্পাদক দুলাল কর্মকার,প্রচার সম্পাদক তপন বর্মন,তপন দেবনাথ,সুজন দাস,সবুজ বর্মন,ভূবন বর্মন,রাজন মন্ডল,হৃদয় সরকার,শুভ বর্মন,ঋষিকেশ মন্ডল,রাজন বর্মন,রঞ্জিত দাস,শারদাঞ্জলী মাতৃশক্তি ফোরামের নেত্রী চঞ্জলাবর্মন প্রমূখ।