এসপি‘র জিরো টলারেন্স’ এমপির দাবী মাদক ব্যবসায়ীদের তালিকা

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্ক:  জেলা পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান বিপিএম, পিপিএম (বার) অপরাধ দমনে পুলিশ জিরো ট্রলারেন্স ভূমিকা রাখার প্রস্তাব উপস্থাপন করেন। পুলিশ সুপারের এমন প্রস্তাবে নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক রাব্বি মিঞাসহ উপস্থিত সকলেই প্রস্তাবে সম্মতি জানিয়েছেন।

অপরদিকে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি সেলিম ওসমান বলেছেন,   মাদক বলে বক্তব্য রাখলেই শুধু  হবে না। নির্দিষ্ট করে মাদক ব্যবসায়ীদের নাম বলতে হবে। বলতে অসুবিধা হলে গোপনে লিখিতভাবে জেলা প্রশাসনকে তথ্য দিবেন তারপর ব্যবস্থা গ্রহন করার দায়িত্ব উনাদের।

রোববার (১৪ অক্টোবর) বেলা ১২টায় নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে জেলার আইনশৃঙ্খলা রক্ষার সর্বোচ্চ নীতি র্নিধারনী ফোরাম জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় উনারা এসব কথা বলেন।

নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি সেলিম ওসমানে আরো  বলেছেন,  এখন বাবা মায়েরাই সন্তান মাদক সেবী হলে পুলিশকে তথ্য দিয়ে ধরিয়ে দিচ্ছেন। দেশদ্রোহী কর্মকান্ডে জড়িত হলে নিহত হওয়ার পর তাদের লাশ পর্যন্ত নিতে চান না। তাই সময় এসেছে এসব অপরাধীদের নাম উল্লেখ করা এবং বাবা মায়েরা যদি একটু সচেতন হোন এবং সহযোগীতা করেন তাহলে মাদক মাদক বলে আর বক্তব্য রাখতে হবে না।

জেলা আইনজীবি সমিতির সভাপতি হাসান ফেরদৌস জুয়েল জেলা আদালত প্রাঙ্গনে একটি ভ্রাম্যমান আদালত স্থাপন করার পরামর্শ প্রদানসহ আদালত প্রাঙ্গনে একটি প্রতারক চক্রের কথা উল্লেখ করে জানান, চক্রটি বিভিন্ন মানুষকে ভূয়া মামলা দিতে হয়রানী করে থাকেন। ওই চক্র টাকার বিনিময়ে মামলার ভিকটিম, সাক্ষী, কাবিন নামা সব কিছুই সরবরাহ করে থাকেন। এই প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনের কথা উল্লেখ করেন। 

জেলা প্রশাসক রাব্বি মিঞার সভাপতিত্বে সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, সংরক্ষিত আসনের নারী সদস্য অ্যাডভোকেট হোসনে আরা বেগম বাবলী, জেলা পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান বিপিএম, পিপিএম (বার), জেলা সিভিল সার্জন এহসানুল হক, সদর উপজেলার চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ, সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা হোসনে আরা বীনা, বন্দর উপজেলার নির্বার্হী কর্মকর্তা পিন্টু ব্যাপারী, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজলসহ অন্যান্য কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি এবং বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।