রূপগঞ্জে ব্যবসায়ীর বাড়ীতে ডাকাতি,স্বর্ণালংকারসহ টাকা লুট

রূপগঞ্জ(আজকের নারায়নগঞ্জ): নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে শাহিন মোল্লা নামে এক পাইকারী থ্রীপিছ ব্যবসায়ীর বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতদল ওই ব্যবসায়ীসহ তার পরিবারের সদস্যদের হাত-পা বেঁধে রেখে ও অস্ত্রেরমুখে জিম্মি করে স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা লুটে নিয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার মধ্যে রাতে উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের মর্তুজাবাদ এলাকায়। ডাকাতির ঘটনাকে কেন্দ্র করে মর্তুজাবাদসহ আশ-পাশের এলাকার জনসাধারনের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

ব্যবসায়ী শাহিন মোল্লা জানান, তিনি ভুলতা গাউছিয়া মার্কেটে থ্রীপিছের পাইকারী ব্যবসা করে আসছেন। প্রায় সময় দোকানের আমদানি বাড়িতে রেখে দেন। বৃহস্পতিবার রাত আড়াইটার দিকে ২০ থেকে ২৫ জনের একদল মুখোশধারী ডাকাতদল শাহিন মোল্লার বাড়ীর গেইট ও দরজার তালা ভেঙ্গে ঘরের ভেতরে প্রবেশ করে। এরপর প্রথমে শাহিন মোল্লার হাত-পা বেঁধে ফেলে এবং বালিশের কভার দিয়ে মুখ চেপে ধরে। পরে মুখোশধারী ডাকাতদল মা হালিমা বেগম, স্ত্রী তাহমিনা আক্তার, মেয়ে নোহা ও রাহাসহ পরিবারের সকলকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ফেলে।

এক পর্যায়ে ঘরে থাকা স্বর্ণালংকার, টাকাসহ মালপত্র না দিলে পরিবারের সদস্যদের জবাই করে হত্যার হুমকি দেয় ডাকাতদল। এসময় আলমারীতে থাকা ১৬ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ ৩ লাখ ৭০ হাজার টাকা লুটে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে শাহিন মোল্লা ও তার পরিবারের লোকজনের আত্বচিৎকার শুরু করলে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাদের উদ্ধার করে। এসময় মসজিদের মাইক দিয়ে এলাকায় ডাকাত এসেছে ঘোষণা দিলে পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

শাহিন মোল্লা আরো জানান, আগামী বুধবার তার বোন মাছুমার বিয়ের অনুষ্ঠান হওয়ার কথা ছিলো। সেখানে বোনের স্বর্ণালংকারও ছিলো। খবর পেয়ে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন।

এলাকাবাসী অভিযোগ করে জানিয়েছেন, এ এলাকায় আগে এ ধরনের কোন ডাকাতির ঘটনা ঘটেনি। ভুলতা ফাঁড়ি পুলিশের নিয়মিত টহল ব্যবস্থা থাকলে হয়তো ডাকাতির ঘটনা ঘটতো না।

ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ রফিকুল হক জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। লুট হওয়া মালামাল উদ্ধার ও ডাকাত দলের সদস্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।