এমপি বরাবরে ধর্ণায়ও প্রতিকার নাই,কাঁদলেন কুতুবপুরের নারী-পুরুষেরা!

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্কঃ  পানির জন্যই গত ৩ থেকে চার মাস ধরে হাহাকার চলছে সদর উপজেলার কুতুবপুরের ৯ নং ওয়ার্ডে। স্থানীয় প্রতিনিধি থেকে শুরু করে রাজনীতিকদের দ্বারস্থ হয়েও আশানারূপ ফল পায়নি এই এলাকার প্রায় লাখ খানেক মানুষ। দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিলেন সাংসদ শামীম ওসমানেরও। কিন্তু ফলশ্রুতিতে পরিস্থিতির কোনো উন্নতি হয়নি।

আর এ কারণে এবার তারা বাধ্য হয়ে পানির দাবিতে শহরতলীর এই মানুষগুলো শহরে এসে করলেন মানববন্ধন। জানালেন তাদের দুর্ভোগের নানা চিত্র। এমনকি এই পানির কষ্টের বর্ণনা করতে গিয়ে অঝোরেও কাঁদলেন কয়েকজন নারী।

বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) নগরীতে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের নিচে বেলা ১১ টার দিকে কুতুবপুরের ৯ নং ওয়ার্ডের নারী-পুরুষেরা পানির দাবিতে এই মানববন্ধন করেন। প্রতীকি হিসেবে আন্দোলনকারীদের হাতে ছিলো খালি কলস।

মানববন্ধন থেকে কয়েকজন নারী জানান, গত চার মাস ধরে ওয়াসা থেকে যে পানি সাপ্লাই দিচ্ছে তা কোনো ভাবেই ব্যবহার করা সম্ভব নয়। ময়লা-দুর্গন্ধ আর কালশিটে পানি। খাওয়া বা ব্যবহার করা তো দূরের কথা হাতেও নেয়া যায় না এই পানি। এ নিয়ে আমরা স্থানীয় মেম্বার থেকে শুরু করে চেয়ারম্যানের দ্বারস্থ হয়েও কোনো ফল পাইনি।

তারা আরও বলেন, গত কয়েকদিন ধরে এই পানির দাবিতে আমরা বিক্ষোভ করছি। এছাড়াও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের কাছেও গিয়েছি। তাদের মাধ্যমে সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের দৃষ্টিও আকর্ষণ করেছি। এতেও কোনো ফল পাইনি। কেউ এগিয়ে আসছে না আমাদের দুর্ভোগ লাঘবে। তাই বাধ্য হয়ে এখানে এসেছি।

মানববন্ধন থেকে তারা আরও জানান, অনেক দূর দূর্নান্ত থেকে আমাদের পানি নিয়ে আসতে হচ্ছে খাবারের জন্য। সে পানি দিয়ে চাল ধুচ্ছি আবার সেই চাল ধুয়া পানি দিয়ে কাপড় কাচছি। আমরা এর থেকে পরিত্রাণ চাই। এই দুর্ভোগ আর পোহাতে পারছি না।