খালেদা জিয়ার বাম হাত বাঁকা, ঘাড়ে ব্যথা ও ফুলে গেছে বাম হাঁটু

রাজনৈতিক ডেস্ক(আজকের নারায়নগঞ্জ):  বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ডায়াবেটিস ও রক্তচাপ অনিয়ন্ত্রিত অবস্থায় রয়েছে। এসব রোগ নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে। এসব রোগ নিয়ন্ত্রণে আসার পর তার পূর্নাঙ্গ চিকিৎসা শুরু হবে। তাই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) তার চিকিৎসা কত দিন চলবে, তা নির্দিষ্ট করে এখনই বলতে পারছে না মেডিকেল বোর্ড।

আজ (সোমবার) দুপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা এ তথ্য জানান।

তারা বলেন, বোর্ড গঠনে হাইকোর্টের নির্দেশনার ব্যত্যয় ঘটেনি।

চিকিৎসকরা জানান, খালেদা জিয়া রিউমাটো আথ্রাইটিস রোগে আক্রান্ত। এ রোগের কারণে তার বাম হাত বাঁকা হয়ে গেছে, তিনি হাত তুলতে পারছেন না। এছাড়া ঘাড়ে ব্যথা ও বাম হাঁটু ফুলে গেছে।

আবদুল জলিল চৌধুরী বলেন, খালেদা জিয়ার সমস্যাটা মূলত গেঁটেবাতজনিত। গত রাতে (রোববার) রাতে অধ্যাপক আতিকুল হক চৌধুরী তার সঙ্গে দেখা করে কথা বলেছেন। এ সময় বেগম জিয়ার পছন্দের চিকিৎসক ডা. মামুন ছিলেন।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার সুষ্ঠু চিকিৎসায় উচ্চমাত্রার ওষুধ প্রয়োগ করার আগে তার হার্ট, কিডনিসহ বেশকিছু অঙ্গপ্রত্যঙ্গের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে হবে। ডায়াবেটিস ও উচ্চরক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে। তার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়েই প্রয়োজনীয় ওষুধ দিতে হবে।

ডা. জলিল চৌধুরী ৩০ বছর ধরে খালেদা জিয়া রিউমাটো আর্থ্রাইটিস রোগে ভুগছেন। এই রোগ কন্ট্রোলে না রাখার কারণে তার বিভিন্ন জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে। তার ঘাড়ে ও কোমরে ব্যথা আছে। তার বাম হিপজয়েন্টে আর্থ্রাইটিস আছে। তার দুই হাঁটু আগে থেকে রিপ্লেস করা, সেখানে কিছুদিন আগে ফুলে গিয়েছিল। ওষুধ দিয়ে তা ঠিক করা হয়েছে।

গত শনিবার বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ভর্তি করা হয়।