২০১৯ সালে এক ভিন্ন উন্নয়ন মেলা উপহার দিবো- ডিসি রাব্বি মিয়া

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্কঃ মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের সমন্বয় ও সংস্কার বিষয়ক সচিব জিয়াউল আলম বলেছেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে চলেছে দূর্বার গতিতে। এ উন্নয়নে সকলেই শরীক রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী এ উন্নয়ন নিদিষ্ট কোনো ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধ রাখেনি। মায়ের গর্ভের শিশু থেকে বৃদ্ধ পর্যন্ত সকলেই এ উন্নয়নে অন্তর্ভূক্ত রয়েছে ।

শনিবার (৬ অক্টোবর) নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার সামসুজ্জোহা ক্রীড়া কমপ্লেক্স প্রাঙ্গনে জেলা প্রশাসক কর্তৃক আয়োজিত তিনদিন ব্যপি ৪র্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলার সমাপনী দিনে আলোচনা সভায় তিনি এ  কথা বলেন । মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সমাপ্তি ঘটে জাতীয় উন্নয়ন মেলার।

আশাবাদ ব্যক্ত করে জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়া বলেছেন, ২০১৯ সালে যখন উন্নয়ন মেলা হবে নতুন বাংলাদেশ সূচনা করার জন্য উদ্দীপনা নিয়ে কাজ করতে পারব। এর জন্য এই সরকারের উন্নয়ন বজায় রাখা দরকার। এই সরকারের কার্যক্রম বজায় থাকলে আগামী ১০ বছর পরে এই দেশের আর পিছনে ফিরে তাকানো লাগবে না। এজন্য আমরাও ২০১৯ সালে এক ভিন্ন উন্নয়ন মেলা উপহার দিবো। এটাই থাকবে আমাদের প্রচেষ্টা।

তিনি আরও বলেন, আমাদের পরবর্তী প্রজন্মকে উন্নত একটি দেশ দিতে হলে আমাদের এই দেশে উন্নয়ন মূলক কাজ করতে হবে। পরবর্তী প্রজন্মের জন্যই আমাদের এই উন্নয়ন। আমাদের প্রজন্মকে মাদক ও জঙ্গিবাদ থেকে দূরে রাখতে হবে। জেলার সকল জাতীয় সংসদ সদস্য ও জেলা, উপজেলার সকল জনপ্রতিনিধিরা জেলার উন্নয়নে সরকারি কর্মকর্তাদের সাহায্য করে যাচ্ছেন। আমাদের মাধ্যমে আরো আগেই বাংলাদেশ তার লক্ষে পৌছে যাবে। তবে এর জন্য প্রয়োজন আমাদের সকলের প্রচেষ্টা। এ জন্য আমাদের সকল বিভাগের সরকারি কর্মকর্তাদের এক সাথে কাজ করতে হবে।

জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে মেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী পরিষদের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) এন.এম জিয়াউল আলম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ বর্ডার গার্ডের (বিজিবি) লে কর্নেল আল আমিন, উন্নয়ন ও আইসিটি বিভাগের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) মো. সেলিম রেজা, নারায়ণগঞ্জ জেলা মহিলা সংস্থার সহ-সভাপতি বেগম ফাতেমা তুজ্জহরা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মনির হোসেন, প্রমুখ।