চাঁদপুর-২ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশি দিপু চৌধুরীর দোয়া প্রার্থনা

মো. দ্বীন ইসলাম, মতলব উত্তর (চাঁদপুর) :  আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চাঁদপুর-২ (মতলব উত্তর-দক্ষিণ) সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামীলীগ নেতা সাজেদুল হোসেন চৌধুরী দিপু। গণমানুষের নেতা সাজেদুল হোসেন চৌধুরী দিপু বিভিন্ন শ্রেনী-পেশা ও দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছে দোয়া, সমর্থন ও সহযোগীতা চেয়েছেন।

তিনি আওয়ামী লীগের মনেনয়ন ও সমর্থনে সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতার ইচ্ছে প্রকাশ করে নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। ইতমধ্যে আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারক পর্যায়ের দায়িত্বশীল একাধিক নেতার আর্শীবাদ নিয়ে মাঠে নেমেছেন। তবে আওয়ামী লীগের আদর্শিক ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী নেতাকর্মী এবং সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে।

আগামি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এমপি মনোনয়ন প্রত্যাশী গণমানুষের আস্থার প্রতিক সাজেদুল হোসেন চৌধুরী দিপু বিভিন্ন শ্রেণী-পেশা ও দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছে দোয়া, সমর্থন ও সহযোগীতা প্রত্যাশা করেছেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে. মেধাবী ও তরুণ আওয়ামীলীগ নেতা সাধারণ মানুষের আস্থার প্রতিক সাজেদুল হোসেন চৌধুরী দিপু ছাত্র জীবনেই বঙ্গবন্ধুর আর্দশে অনপ্রাণিত হয়ে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন এবং ছাত্রলীগ-যুবলীগ হয়ে এখানো আওয়ামীলীগে নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

চাঁদপুর-২ আসনের নির্বাচনী এলাকায় বিভিন্ন উন্নয়ন, সমাজ সেবা, ক্রীড়া ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে দীর্ঘদিন ধরে তিনি নিজেকে সম্পৃক্ত রেখে চলেছেন। ফলে নির্বাচনী এলাকা জুড়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে তার একটা পরিচ্ছন্ন ও নিজেস্ব ব্যক্তি ইমেজ তৈরী হয়েছে। নির্বাচনী মনোনয়ন দৌড়ে তিনিই একমাত্র প্রার্থী এছাড়াও অন্যান্য সবকিছুও তার অনুুকুলে রয়েছে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি প্রার্থী তার বিজয়ের সম্ভবনা অত্যন্ত উজ্জল বলে বিশেøষকরা মনে করেন।

ইতিমধ্যে প্রচার-প্রচারণা ও উঠান বৈঠকে তিনি নির্বাচনী এলাকার জনসাধারণের কাছে বলেন, তিনি মনোনয়ন প্রত্যাশা করে উন্নয়নের প্রতীক নৌকার পক্ষে ভোট চাইতে এসেছেন তিনি সকলে নৌকা প্রতিকে ভোট দেয়ার আহবান জানান।

এছাড়াও তিনি অঙ্গীকার প্রকাশ করে বলেন, তিনি আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেলে বিজয়ী হবেন ইনশাল্লাহ আর বিজয়ী হলে তিনি তার সকল যোগ্যতা ও দক্ষতা দিয়ে নির্বাচনী এলাকার অবহেলিত জনগণের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ করবেন।

তিনি বলেন, সাধারণ জনগণ সব সময় তাদের সঙ্গে ছিল, আছে এবং আগামী দিনেও থাকবে ইনশাল্লাহ তাই মৃত্যুর আগে তিনি নির্বাচনী এলাকার সাধারণ মানুষের জন্য এমন একটা কিছু করে যেতে চান যেনো মৃত্যুর পরেও তার করে যাওয়া কাজের মাধ্যমে মানুষ তাকে স্মরণ করেন।

জানা গেছে, তরুণ ও মেধাবী আওয়ামী লীগ নেতা সাজেদুল হোসেন চৌধুরী দিপু জন্ম একটি সমভ্রান্ত মুুসলিম পরিবারে হওয়ায় নির্বাচনী এলাকায় তার ব্যাপক সামাজিক পরিচিতি রয়েছে, ছাত্র জীবন থেকেই তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে সম্পৃক্ত। আওয়ামী লীগের জাতীয় পর্যায়ে অনেক নেতৃৃবৃন্দের সঙ্গে তার রয়েছে গভীর ও নিবিড় সম্পর্ক। একজন উচ্চ শিক্ষিত সৎ, যোগ্য ও ভালো মানুষ হিসেবে তার একটা ব্যক্তি ইমেজ রয়েছে সর্বমহলে।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচনী এলাকা থেকে তিনিই একমাত্র প্রার্থী হওয়ার দৌড়ে রয়েছেন। এতে অনেক সুবিধেও রয়েছে তার পক্ষে। নির্বাচনী এলাকার সাধারণ মানুষের অভিমত এসব বিবেচনায় দিপু প্রার্থী হলে তারই বিজয়ী হবার উজ্জল সম্ভবনা রয়েছে। একদিকে আওয়ামীলীগের নিজস্ব বিশাল ভোট ব্যাংক অন্যদিকে দিপু চৌধুরী পরিবারের ব্যাপক সামাজিক পরিচিতি ও বিশাল জনসমর্থন এক সঙ্গে কাজে লাগাতে পারলে তার বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না।

এসব বিবেচনায় তাকে অপ্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী হিসেবে ধরে নিয়ে আওয়ামীলীগ বিরোধী অন্যান্য রাজনৈতিক দল তাদের নির্বাচনী পরিকল্পনার ছক আঁকছে করছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। তিনি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশা ও দলমত নির্বিশেষে সকলের দোয়া ও সহযোগীতা চেয়েছেন। নির্বাচনী এলাকায় যতটুকু উন্নয়ন হয়েছে তাতে কোনো না কোনো অবদান রয়েছে দিপু চৌধুরী পরিবারের। এ ছাড়াও ক্লিনম্যান হিসেবে দলমত নির্বিশেষে সকলের কাছে তার ব্যাপক পরিচিতি রয়েছে। এই বিষয়টিও বিবেচনায় নিয়ে নির্বাচনী এলাকার সাধারণ মানুষ তাকে তাদের প্রতিনিধি করতে উৎসাহী হয়ে উঠেছে।

এছাড়াও সাজেদুল হোসেন চৌধুরী দিপু পরিবার থেকে প্রতিটি ক্ষেত্রে নির্বাচিত হয়ে নেতৃত্ব দিয়ে আসছে। আর তাই এই অঞ্চলের সাধারণ মানুষের একটিই দাবি সাজেদুল হোসেন চৌধুরী দিপু এমপি দেখতে চাই। ফলে দিপুকে নিয়ে সাধারণের আগ্রহের কোনো শেষ নাই।

এ ব্যাপারে সাজেদুল হোসেন চৌধুরী দিপু বলেন, তিনি এবার মনোনয়ন প্রত্যাশা করে উন্নয়নের প্রতীক নৌকার জন্য ভোট চাইছেন। মনোনয়ন দেয়ার মালিক দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা। আমি শতভাগ আশাবাদী দল আমাকে মনোনয়ন দিবে। তিনি বলেন, মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হলে তিনি নির্বাচনী এলাকাবাসিকে সঙ্গে নিয়ে শিক্ষা বিস্তার, মাদকমুক্ত, শতভাগ স্যানিটেন, বিশুদ্ধ খাবার পানির সুব্যবস্থা ও সকলের সমঅধিকার প্রতিষ্ঠাসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড গ্রহণের মাধ্যমে মতলব উত্তর-দক্ষিণ মডেল উপজেলায় উন্নীত করবেন। এ জন্য তিনি সকলের কাছে দোয়া ও আন্তরিক সহযোগীতা প্রত্যাশা করেছেন।