উদ্বোধনের অপেক্ষায় শীতলক্ষ্যা নদীর মুড়াপাড়া সেতু

রূপগঞ্জ (আজকের নারায়নগঞ্জ) : স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) অধীনে ৭৪ কোটি ৯ লক্ষ ৯৫ হাজার টাকায় নির্মাণাধীন নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার শীতলক্ষ্যা নদীর মুড়াপাড়া সেতু উদ্বোধনের অপেক্ষায় রয়েছে। উপজেলা ও ইউনিয়ন সড়কের দীর্ঘসেতু নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় নির্মাধীন এই সেতুর দৈর্ঘ্য ৫৭৬ মিটার। এই উন্নয়ন প্রকল্প মূলক যার প্রচেষ্টায় শুরু করা হয়েছিল তিনি হলে নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতিক। এ কারণে এই সেতুটি স্থানীয়দের কাছে গোলাম দস্তগীর গাজী সেতু নামে পরিচিত।
বর্তমানে সেতুটি উদ্বোধনের প্রস্তুতি নিচ্ছে এলজিইডি বিভাগ। প্রধানমন্ত্রী শেষ হাসিনা সেতুটি উদ্বোধন করবেন এমনটি আশা করছেন আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ও এলাকাবাসী। সেতুটি এখন ঘষা-মাজা ও রং করা হচ্ছে। শীতলক্ষ্যা নদীর পশ্চিম পারে সেতুর ২২০ মিটার এপ্রোচ সড়কের মধ্যে ৭০টি মিটার সড়কের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বাকি ১৫০ মিটার এপ্রোচ সড়কের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই এপ্রোচ সড়কসহ সেতুর নির্মাণকাজ শতভাগ সম্পন্ন হবে বলে দাবি করেছেন রূপগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী এহসানুল হক।
সেতুটি চালু হলে স্থানয়ি উন্নয়ন ত্বরান্বিত হওয়ার পাশাপাশি রাজধানীর সাথে ঢাকার পূর্বাঞ্চলীয় জেলার যাতায়াত সহজ হবে। পাশাপাশি মহাসড়কের যানজটও কমে আসবে। এছাড়া এ সেতুটি চালু হলে পূর্বাচল উপশহরসহ আশপাশের এলাকাগুলোর যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হবে। শীতলক্ষ্যা নদী দিয়ে ফেরি পারাপারের দূর্ভোগ কমে যাবে। ব্যবসা বাণিজ্যে চাঙ্গা হয়ে উঠবে রূপগঞ্জ।
রূপগঞ্জের রূপসী এলাকার ব্যবসায়ী গোলজার হোসেন প্রধান বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে দেশের উন্নয়ন হয়। তারই অংশ হিসেবে মুড়াপাড়া সেতুসহ বেশ কিছু মেগা প্রকল্পের কাজ রূপগঞ্জে দ্রুত গতিতে চলছে। নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রকৌশলী স্বপন কান্তি পাল জানান, কেবল সেতুই নয়, সরকারের উন্নয়নের মাইল ফলকের বেশ কিছু মেগা প্রকল্প এই এলাকায় বাস্তবায়ন হচ্ছে। প্রকল্পেগুলো সম্পন্ন হলে রূপগঞ্জ নতুন রূপে সাজবে। তারাবো পৌরসভার মেয়র হাসিনা গাজী বলেন, সেতুটি চালু হলে রূপগঞ্জে নতুন শিল্প কারখানা গড়ে উঠবে। জমির দাস ও জনবসতি বাড়বে। সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতিক বলেন, এ সেতুটি চালু হলে ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট সমস্যার নিরসন হবে। যোগাযোগ ক্ষেত্রে রূপগঞ্জ আরো একধাপ এগিয়ে যাবে।