ছাত্রী যৌন হয়রানিঃ শিক্ষককে বছরের কারাদন্ড

সারাবাংলা(আজকের নারায়নগঞ্জ):  ছাত্রীদের আপত্তিকর মন্তব্যসহ যৌন হয়রানির অভিযোগে টাঙ্গাইলের বিন্দুবাসিনী সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক সাঈদুর রহমানকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্কুলটির ছাত্রী ও অভিভাবকরা। সোমবার বেলা ১১ দিকে এই ঘটনা ঘটে।

পরে ইভটিজিংয়ের অভিযোগে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে সাইদুর রহমানকে এক বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়। টাঙ্গাইলের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাহারিয়ার রহমান এ সাজা দেন।

জানা গেছে, ইংরেজি বিভাগের সহকারী শিক্ষক সাঈদুর রহমান বাবুল ছাত্রীদের বিভিন্নভাবে যৌন হয়রানি করতেন। নানা কুপ্রস্তাব ও অশালীন মন্তব্যও করতেন এই শিক্ষক। বিষয়টি একাধিকবার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মামুন তালুকদারকে জানানো হলেও তিনি কোনো ব্যবস্থা নেননি।

প্রধান শিক্ষক উল্টো তাদের স্কুল থেকে বের করে দেয়ার হুমকি দেন। এ সময় তিনি সাঈদুর রহমান বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই উল্লেখ করে অভিযোগ জানাতে আসা শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে একটি কাগজে স্বাক্ষর নেন।

বিষয়টি জানাজানি হলে ছাত্রীরা ক্লাস বর্জন করে এবং ওই শিক্ষককে অবরুদ্ধ করে রাখে। একপর্যায়ে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা সাইদুর রহমানকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

টাঙ্গাইল সদর মডেল থানার ওসি সায়েদুর রহমান জানান, ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে ইভটিজিংসহ নানা অভিযোগ করে আসছিলেন অভিকবাবক ও শিক্ষার্থীরা। সোমবার অবরুদ্ধ সাইদুর রহমানকে পুলিশের হেফাজতে নেয়া হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত তার এক বছরের কারাদণ্ড দেন।