বড়দের থেকে সবসময় শেখার কিছু আছে- ডিসি রাব্বি মিয়া

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্ক: জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়া বলেছেন, বড়দের থেকে সবসময় শেখার কিছু আছে। জ্যেষ্ঠ নাগরিকদের আমাদের সম্মান করতে হবে। আজ প্রবীণ দিবস উপলক্ষে আপনাদের সবাইকে একসাথে পেয়েছি। আজও আপনাদের কাছে কিছু জানব।

তিনি বলেন,  সরকার মহিলাদের ইভটিজিং ও প্রতিবন্ধিদের সুবিধার জন্য বাসে সংরক্ষিত সিটের ব্যবস্থা করেছেন। আমি লিখিত ভাবে সুপারিশ করব যেন বাসে জ্যেষ্ঠ নাগরিকদের জন্য সংরক্ষিত আসনের ব্যবস্থা করা হয়। বাসে মহিলা, প্রতিবন্ধি শব্দের সাথে জ্যেষ্ঠ নাগরিক শব্দটিও যোগ হবে। তাহলেই হলে গেল, বাসে তরুন যাত্রীরা ভদ্রতা শিখুক আর না শিখুক, বাধ্য হয়ে জ্যেষ্ঠ নাগরিকদের সিট খালি করে দিবে। কিছু করার নাই জোর করেই এখন শিষ্টাচার শেখাতে হবে। আমি সিভিল সার্জনের সাথেও কথা বলব। প্রবীণদের হাসপাতালে সুযোগ-সুবিধা বাড়িয়ে দেওয়ার কথা বলব।

রবিবার (১ অক্টোবর) জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস-২০১৮ উদযাপন উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় প্রবীণদের শ্রদ্ধায় জেলার জেলা প্রশাসন, জেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ে ও বাংলাদেশ প্রবীণ হিতৈষী সংঘের আয়োজনে প্রবীনদের নিয়ে এই অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

তিনি আরও বলেন, আপনারা আপনার পুরো জীবন আমাদের অনেক কিছু আমাদের দিয়ে যাচ্ছেন। এজন্য আপনারা আমাদের নিকট সম্মানিত। সরকারি অবসর কর্মকর্তাদের মধ্যে যারা শতভাগ পেনশন নেওয়ার পর যাদের ১৫ বছর হয়ে গেছে , তারা পুনরায় পেনশন পাবেন। জ্যেষ্ঠ নাগরিকদের সম্মান দেওয়ার জন্যই সরকার আপনাদের জন্য এ কাজটি করেছে। আমি সবাইকে সবসময় নতুন প্রজন্মকে মূল্যবোধ শেখানোর কথা বলি।

সহকারী পুলিশ সুপার ( ট্রাফিক) মো. আব্দুর রশিদ পি পি এম বলেন, প্রবীণদের সবসময় সরকারের পক্ষ থেতে সর্বাধিক সহযোগিতা করা হবে। সড়কে ট্রাফিক পুলিশের কাছে যেকোন সাহায্য চাইলে তাদের বিশেষ ভাবে সাহায্য করা হবে। প্রয়োজনে তাদের রাস্তা পারাপারের ক্ষেত্রেও সহযোগিতা করা হবে।

জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ পরিচালক শহীদুল ইসলাম সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. আনিসুল বারী, সহকারী পুলিশ সুপার ( ট্রাফিক) পি পি এম মো. আব্দুর রশিদ। বাংলাদেশ প্রবীণ হিতৈষী সংঘ ও জরা বিজ্ঞান প্রতিষ্ঠানের জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক, প্রবীণ সংঘের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক।

অনুষ্ঠান শেষ সময়ে বাংলাদেশ প্রবীণ হিতৈষী সংঘ ও জরা বিজ্ঞান প্রতিষ্ঠান জেলা শাখার পক্ষ থেকে বৃদ্ধা মা লাইলী বেগমকে সেবাযত্ম করার জন্য পশ্চিম ইসদাইর বাসিন্দা আব্দুল্লাহ আল মামুনকে পুরস্কার স্বরূপ মমতাময়ী ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়।