আত্মতুষ্টিতে থাকা যাবে না,আত্মতুষ্টি মানেই পতন- প্রধানমন্ত্রী

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্কঃ  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  বলেছেন, মনে রাখতে হবে ষড়যন্ত্র এখনো শেষ হয়নি। আত্মতুষ্টিতে থাকা যাবে না। আত্মতুষ্টি মানেই পতন। প্রতিপক্ষকে শক্তিশালী ভেবে নেতাকর্মীদের সর্তক থাকতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, ৭৫’ এ বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর পিছিয়ে যাওয়া বাংলাদেশের সম্মান আজ ফিরে পেয়েছে। আজ যত অর্জন তা জনগণের দান, সুযোগ দিয়েছে বলে আজ এতো সাফল্য পেয়েছি ।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের (ইউএনজিএ) ৭৩তম অধিবেশনে যোগদান শেষে আজ সোমবার সকালে দেশে ফিরে গণভবনে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

রোহিঙ্গাদের আশ্রয়দানে মানবিক ও দায়িত্বশীল নীতির জন্য নেতৃত্বের স্বীকৃতি হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘ইন্টারন্যাশনাল অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ এবং ২০১৮ স্পেশাল ডিস্টিংকশন অ্যাওয়ার্ড ফর আউটস্ট্যান্ডিং অ্যাচিভমেন্ট’ পাওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে গণভবনে সংবর্ধনা দেয়া হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের একটা শক্তিশালী প্রতিপক্ষ আছে। তাদের চক্রান্ত অনবরত চলছে। তারা জানে, তারা ভোটের রাজনীতি পারবে না। কিন্তু ক্ষমতার লোভ আছে। তাই একাত্তরের পরাজিত শক্তির সাথেই হাত মেলায়, খুনি-ঘাতকদের সাথে হাত মিলিয়ে সারাক্ষণ আমাদের বিরুদ্ধে লেগে থাকে।

১৯৭৫ এর ঘাতকের দল, ৭১’র পরাজিত শক্তি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যে শক্তি চক্রান্ত করে ১৫ আগস্ট ঘটাল এদেশে। যে শক্তি বারবার আঘাত হেনেছে। শুধু ২১ আগস্ট না, ’৮৮ সালে ২৪ জানুয়ারি বা ৮১ সাল থেকে আমি বাংলাদেশে পা দেওয়ার পর থেকেই একের পর এক যে ঘটনাগুলি ঘটেছে, তার পেছনে তারা রয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব ইমরুল কায়েস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গতকাল রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় যুক্তরাজ্যের লন্ডনের হিথ্রো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে যাত্রা শুরু করেন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে নিউইয়র্ক থেকে দেশে ফেরার পথে লন্ডনে যাত্রাবিরতি করেন তিনি।

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দিতে গত ২১ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন শেখ হাসিনা। তিনি ২৭ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৩তম অধিবেশনে ভাষণ দেন এবং জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের সঙ্গে বৈঠক করেন।