বালিশ চাপায় স্ত্রীকে হত্যা করে পালিয়েছে ঘাতক স্বামী

আড়াইহাজার (আজকের নারায়নগঞ্জ):  নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে পারিবারিক কলহের জের ধরে ঘুমের মধ্যে নাকেমুখে বালিশ চাপা দিয়ে স্ত্রী সাহেরা বেগম(২৪) কে হত্যা করে পালিয়ে যায় স্বামী।
আড়াইহাজার থানা পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানাগেছে,উপজেলার সাতগ্রাম ইউনিয়নের ধোপারটেক গ্রামের সুরুজ মিয়ার মেয়ে সাহেরা বেগমের সাথে বেশ কয়েক বছর আগে নরসিংদী জেলার মাধবদী থানার দিঘিরপাড় এলাকার রেজ্জাকের ছেলে আপেল মিয়ার বিবাহ হয়। বিবাহের পর থেকে তাদের সংসারে পারিবারিক কলহ লেগেই থাকে।
সম্প্রতি সাহেরা বেগম পিতার বাড়িতে বেড়াতে আসে। সেই সুবাদে শুক্রবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রাতে স্বামী আপেল মিয়া সাহেরাদের বাড়িতে আসে। রাতে স্বামী-স্ত্রী খাওয়া দাওয়া সেরে ঘুমিয়ে পড়ে। রাত তিনটার দিকে ঘরে বাতি জ্বালানো দেখে বাড়ির লোকজন ঘুম থেকে জেগে দেখতে পায় সাহেরার থাকার ঘরের জানালা খোলা। পরে ঘরে গিয়ে দেখতে পায় সাহেরা বেগমের নাকে মুখে বালিশ টাপা দেওয়া রয়েছে। বাড়ির লোকজন সাহেরা বেগমের মুখ থেকে বালিশ সরালে তাকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান।
সাহেরা বেগমের পিতা সুরুজ মিয়া জানান,তার মেয়ে সাহেরা বেগমের স্বামী আপেল মিয়া সাহেরাকে নাকেমুখে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করে জানালা দিয়ে পালিয়ে যায়।
খবর পেয়ে আড়াইহাজার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ মর্গে প্রেরন করেছে।
আড়াইহাজার থানার ওসি এম এ হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।