ফতুল্লায় অপহৃত শিশুকে ধলেশ্বরীতে নিক্ষেপ,অপহরনকারী আটক

ফতুল্লা(আজকের নারায়নগঞ্জ):   ফতুল্লায় টাকার জন্য  আহাদ বাবু নামের ৫ বছরের এক শিশুকে অপহরণের পর মুক্তারপুর ব্রিজের উপর থেকে ধলেশ্বরীতে ফেলে দিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।   বুধবার(২৬ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় ভোলাইল শান্তিনগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ব্যাপারে ঘটনার রাতেই অপহৃত শিশুর পিতা আবদুল মজিদ ফতুল্লা মডেল থানায় জিডি দায়ের করলে পুলিশ নাজমুল হুদা লিয়ন (২৩) নামের এক যুবককে আটক করেছে । বৃহস্পতিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকালে ভোলাইল শান্তিনগর এলাকায় অভিযান চালিয়ে লিয়নকে আটক করে পুলিশ ।

অভিযোগকারী আবদুল মজিদ ওই এলাকার আবুল হোসেনের বাড়ির ভাড়াটিয়া আলীমন মিয়ার ছেলে।

আবদুল মজিদ  জিডিতে অভিযোগ করেন,রাতে বাসায় টিভি দেখছিলো লিয়ন। এসময় শিশুটির মা একটি কাজে বাসা থেকে বাইরে যাওয়ার সময় শিশু আহাদ বাবুকে দেখে রাখার জন্য লিয়নকে বলে যান। তবে এই সুযোগে লিয়ন শিশুটিকে নিয়ে চলে যায়।  রাতে শিশু সন্তানকে নিয়ে লিয়ন যখন বাসায় ফিরে আসেনি তখন বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুজি করে কোথায়ও পাওয়া যায়নি। পরে রাতের কোন এক সময় শিশুটিকে মুন্সিগঞ্জের মুক্তারপুর সেতু থেকে ধলেশ্বরী নদীতে ফেলে দেয়। বৃহস্পতিবার সকালে লিয়নকে পুলিশ  আটক করে।

ফতুল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি শাহ মঞ্জুর কাদের জানান, বুধবার রাতে ফতুল্লার ভোলাই এলাকা থেকে শিশু আহাদকে অপহরণ করে নিয়ে যায় প্রতিবেশী নাজমুল হুদা লিয়ন। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা আব্দুল মজিদ ফতুল্লা মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন।

মুন্সিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসাইন জানান, শিশুটি আহাদ বাবুকে নদীতে ফেলে দেয়ার কথা স্বীকার করে লিয়ন জানিয়েছে টাকার জন্যই শিশুটিকে সে অপহরণ করে নিয়ে গিয়েছিল।

তিনি  আরো জানান, আটক লিয়নকে ফতুল্লা থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এছাড়া নদীতে ফেলে দেয়া শিশুটিকে খুজে পেতে মুন্সীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল নদীতে তল্লাশী অভিযান চালাচ্ছে।