না‘গঞ্জ বারের সবচেয়ে সফল জুয়েল-মহসীন প্যানেল !

আইন-আদালত(আজকের নারায়নগঞ্জ): নারায়নগঞ্জ জেলা আইনজীবি সমিতির ‘সবচেয়ে সফল কমিটির’ খেতাবটি জুয়েল-মহসীন প্যানেলের জন্যে অবধারিত হয়ে গেল। বিএনপিপন্থি আইনজীীবদের অনুষ্ঠান বর্জনের পরও অভিষেক অনুষ্ঠানটি চিরস্মরনীয় হয়ে থাকবে আইনজীবিদের জন্যে ডিজিটাল ভবনের উদ্যোগের কারনে। শুধু উদ্যোগই নয়, তা বাস্তবায়নের জন্যে ইতিমধ্যে ৫কোটি টাকার অনুদানেরও ব্যবস্থা হয়ে যাচ্ছে। এ ছাড়াও দুইকোর্ট  একসাথে রাখার আইনজীবিদের স্বপ্নও বাস্তবায়ন হবে।

২৩ সেপ্টেম্বর রবিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির কার্যকরী পরিষদের অভিষেক ও ডিজিটাল বার ভবনের ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে মন্ত্রী এক কোটি টাকা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।  এর আগে মন্ত্রী স্থানীয় এমপিদের নিয়ে ডিজিটাল বার ভবনের ভিত্তি প্রস্তুর উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, নারায়ণগঞ্জে ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট ও জজ কোর্ট একই সঙ্গে একই স্থানে থাকবে। সেই সঙ্গে তিনি এও বলেছেন এখানে আইনজীবীদের জন্য হবে ডিজিটাল বার ভবনও। যেখানে তিনি এক কোটি টাকা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলেছেন, আমরা আকাশে তাকালেও দেখি গাজী ট্যাক, রাস্তায় দেখি গাজী টায়ার, ঘরে দেখি গাজী টিভি। তাই এক কোটি টাকার জন্য আমাদের চিন্তা করতে হবেনা।’

ওই সময় মঞ্চে বসা গাজী গ্রুপের মালিক আওয়ামীলীগের এমপি গাজী গোলাম দস্তগীরেরও সম্মতি, ডিজিটাল বার ভবন নির্মাণে তিনি এক কোটি টাকা দিবেন।

এছাড়াও ডিজিটাল বার ভবন তৈরি করতে সেলিম ওসমান নিজের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৩ কোটি টাকার দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলেন, আমি এমপি আবার হই বা না হই আমি নিজের থেকে ৩ কোটি টাকা পর্যন্ত দিয়ে যাবো। এছাড়াও ভবন নির্মাণ শেষ করতে পরবর্তীতে যত টাকা লাগবে তার ব্যবস্থা করে দিব। এ কারনে আইনজীবীরা বলছেন-প্রাথমিকভাবে আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট হাসান ফেরদৌস জুয়েল ও সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ মোহসীন মিয়া সফল হয়েছেন। এখন শুধু কাজ শুরু করা এবং শেষ করা। আইন মন্ত্রী এবং এমপি সেলিম ওসমান ও গাজীর প্রতিশ্রুতিতে আইনজীবীদের সকল শঙ্কার অবসান ঘটলো।

এর আগে আইনজীবি সমিতির সভাপতি হাসান ফেরদৌস জুয়েল দাবী করেছেন,সমিতির তহবিল থেকে ভভন নির্মানে কোন অর্থ খরচ করা হবে না।

নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট হাসান ফেরদৌস জুয়েলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী, নারায়ণগঞ্জের সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট হোসনে আরা বেগম বাবলী, আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের সচিব আবু সালেহ শেখ মোহাম্মদ জহিরুল হক, যুগ্ম সচিব বিকাশ কুমার সাহা, নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আনিসুর রহমান, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া, চিফ জুুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আতিফ বিন কাদের ও নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার আনিসুর রহমান।

আইনজীবী সমিতির এই অভিষেক অনুষ্ঠানটি বর্জন করেছে বিএনপির সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদ প্যানেল থেকে নির্বাচিত ১১ জন আইনজীবী এবং বিএনপি পন্থী আইনজীবীরা। তাদের অভিযোগ- আইনজীবী সমিতির অতীতে কখনই কোন দলীয় নেতার ছবি সম্বলিত ব্যানার লাগিয়ে সমিতির অভিষেক হয়নি। এটা দলীয় ব্যানারে দলীয় কর্মসূচির মত করা হয়েছে তাই বিএনপির আইনজীবীরা এই অভিষেক বর্জন করেছেন। সমিতিতে ১৭টি পদের মধ্যে ১১টি পদেই রয়েছেন বিএনপির আইনজীবীরা। অভিষেকের ব্যানারে জাতির জনক ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ছিল।