কবি মাফরুহা মিতু আহসানের তিনটি কবিতা

 

১। ঘাস ফড়িং

নেই যে কোথাও ঘাস ফড়িং
শিশির ভেজা ঘাস;
হারিয়ে গেছে শাপলা শালুক
বক চিল বুঁনো হাঁস।

ঘাস ফড়িংটা খেলে না আর
টার্ফ বিছানো ঘাসে
আর্টিফিশ্যাল ফুটছে ফুল
পার্কে বারো মাসে।

ইট পাথরের এই শহরে
আছেন ক’জন ভালো?
ঘুরে ফিরে মোবাইল গেমে
রাত জেগে তাই খেলো।

ছুটে চলা এই ব্যস্ত শহরে
কেউ যে আপন নয়
জীবন যেন রেসের ঘোড়া
নেই যে কারো সময়।

২। না বলা কথা

যে কথা বলা হয়নি
কখনো কোন দিন
হয়তো হয়ে উঠেনি
আজও নয় !

শব্দে শব্দে সাজানো
কথামালা এখনও
নিস্তব্ধ মনের গহীনে
অব্যক্ত অমলিন।

যে কুড়ি ফোঁটেনি
পূর্ণতা পাইনি আজও
যেন বলা হলো না কিছু
না বলাই থেকে যায়।

যে কথা বলা হয়নি
নাই বা হলো বলা
মনের গহীনে তো
এক সাথে পথ চলা।

৩। ইলিশ কাব্য

জাতীয় মাছ ইলিশ হলেও
দামে একটু চড়া
কিনতে গিয়ে হোঁচট খেলেও
ইলিশে বাজার ভরা।

ইলিশ ভাপা সরষে বাটা
নোনা বারো মাস
ইলিশ পোলাও খেতেই হবে
মনে বড়ই আশ!

ইলিশ ভাজা দো পেঁয়াজা
কাঁচা লং কা ঝোলে
আরো মজার রান্না হবে
টাটকা ইলিশ হোলে।

পদ্মা নদীর জোড়া ইলিশ
বিশ্ব জোড়া দাম
ইলশে কাচ্চি বিরিয়ানি
মজা-তে বেশ নাম।
[মজা* – তাজমহল রোডের একটি খাবার হোটেল]