ট্রেনের পর সড়কপথে নির্বাচনী সফরে আওয়ামীলীগ

রাজনৈতিক ডেস্ক(আজকের নারায়নগঞ্জ): ট্রেনের পর এবার সড়কপথে নির্বাচনী সফর শুরু করেছে আওয়ামী লীগ। শনিবার সকাল সাড়ে ৮টায় ধানমন্ডির আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে কক্সবাজারের উদ্দেশ্য এ সফর শুরু করেছে দলটি।

আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে  প্রতিনিধি দলে রয়েছেন; সাবেক আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন খসরু, দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়াসহ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা।

ধানমন্ডি কার্যালয় বের হওয়ার সময় সফরের সূচনা বক্তব্যে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকারের উন্নয়নের বার্তা তৃণমূলে পৌঁছাতে বিমান ও ট্রেন যাত্রার পর সড়ক পথে নির্বাচনী যাত্রায় চট্রগ্রাম কক্সবাজার যাচ্ছেন আওয়ামী লীগের নেতারা।

তিনি বলেন, এখন আমরা সড়ক পথে চট্রগ্রাম কক্সবাজার যাচ্ছি। যাত্রাপথে প্রথমে কুমিল্লায় পথসভা করব, পরে চৌদ্দগ্রাম, ফেনীতে পথসভা করে রাতে চট্রগ্রামে পৌঁছাবো।
রোববার সকাল ৯টায় চট্রগ্রাম থেকে কক্সবাজার যাওয়ার পথে কর্ণফুলী, লোহাগড়া, চকরিয়া, কক্সবাজার ঈদগা মাঠে পথসভা করব।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, দলীয় নেতাকর্মীরা নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্ব নিরসন করে ঐকবদ্ধ থাকার নির্দেশনার পাশাপাশি সরকারের উন্নয়ের বার্তা জনগণের মধ্যে পৌঁছে দিতেই আওয়ামী লীগ এই পথসভা করছে।

তিনি বলেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ নিয়ে সরকারের পক্ষ থেকে কোনো বাধা নেই। তবে সহিংসতা করলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার বিপুল উন্নয়ন করেছে, আমাদের নেত্রী দেশের জনগণের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। এই উন্নয়নের বার্তা মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে যাচ্ছি। এছাড়া দলীয় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকার কথা বলব, কলহ কোন্দল মিটিয়ে ঐক্যবদ্ধ লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত থাকার জন্য উদ্বুদ্ধ করব।

এর আগে গত ৮ সেপ্টেম্বর নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনে করে উত্তরবঙ্গ সফরে যায় আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিদল। এর পর ১৩ সেপ্টেম্বর লঞ্চ যোগে বরগুনা সফরের কথা থাকলেও পরে তা বাতিল করা হয়।