টার্গেট ব্যর্থঃ বেপরোয়া হয়ে উঠেছে জুয়াড়ি মাহবুব-শফিকগং

ফতুল্লা(আজকের নারায়নগঞ্জ):  জুয়াড়ি মাহবুব-শফিকদের যন্ত্রনায় অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে পাগলা-জালকুড়ি রুটের ইজিবাইক চালকেরা। উক্ত সড়কে চলাচলরত ইজিবাইক চালকেরা দফায় দফায় জুয়াড়ি-সন্ত্রাসীদের হামলাসহ ছিনতাইয়ের শিকার হচ্ছে। এ ব্যাপারে ফতুল্লা মডেল থানায় অভিযোগ জানালেও পুলিশ কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। এ অবস্থায় ইজবাইক চলাচল বন্ধসহ যেকোন কঠিন আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবে মেহনতি ইজিবাইক চালকেরা।

১৭ সেপ্টেম্বর সোমবার বিকালে মেরীএন্ডাসন সংলগ্ন ইজিবাইক চালকদের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এমনি হুশিয়ারী দিলেন ব্যাটারী চালিত অটোরিকশা-ইজিবাইক মালিক-সংগ্রাম পরিষদের পাগলা শাখার নেতৃবৃন্দ।

তারা আরো অভিযোগে জানান, দু’একটি সংবাদ মাধ্যমে কোথাও ৫৭ লাখ টাকা আবার কোনটিতে ৪৩ লাখ টাকার চাঁদাবাজির কথা বলা হয়েছে। এতেই বুঝা যায় আমাদের নেতা কাউসার আহমেদ পলাশের সুনাম ক্ষুন্ন করার লক্ষ্যে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে উপস্থাপন করা হচ্ছে।

এ ছাড়াও বলা হয়েছে, পাগলা এলাকায় একটি শিশু দুর্ঘটনায় পতিত হওয়ার ঘটনার তথ্য নেতা পলাশকে জানান জুয়াড়ী শফি। অথচ তখন আমাদের নেতা পলাশ ছিলেন হজ্বের উদ্দেশ্যে মক্কানগরীতে। এতেই বুঝা যায়,শুধুমাত্র তাদের চাঁদাবাজির মিশন ব্যর্থ হওয়ার ক্ষোভেই এ ধরনের ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে সংবাদমাধ্যমসহ জনগনকে বিভ্রান্ত করার অপপ্রয়াস চালাচ্ছে।

পাগলা শাখার সভাপতি মজিবর রহমান লিখিত বক্তব্যে জানান, যখন ইজিবাইক চালকেরা রাজপথে বিশৃঙ্খল অবস্থায় ছিল। তখন জাতীয় শ্রমিকলীগ নেতা কাউসার আহমেদ পলাশের স্মরনাপন্ন হলে তার নেতৃত্বে এ সেক্টরে শৃঙ্খলা ফিরে আসে।

তার সুশৃঙ্খল নেতৃত্বে গঠিত হয় ব্যাটারী চালিত অটোরিকশা-ইজিবইক মালিক-শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদ। পাগলা-পঞ্চবটি রুটসহ পাগলা-জালকুড়ি এবং ফতুল্লা টু শিবু মার্কেট সড়কে চলাচলরত চালক-শ্রমিকদের সূষ্ঠ জীবনযাপনের জন্যে গঠন হয় শ্রমিক কল্যান তহবিল। যার হিসাব খোলা আছে আলআরাফা ব্যাংক পাগলা শাখায়। এ ছাড়াও সংগঠনের আওতায় দুটি ইজিবাইক চলছে রাস্তায়। এ সকল আয় দিয়ে মালিক-শ্রমিকদের ক্রান্তিকালে আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়ে থাকে। যার প্রমাণ বিগত সময়ে বর্তমান এমপি একেএম শামীম ওসমান,জেলা প্রশাসক আনিসুর রহমান মিঞা,ফতুল্লা মডেল থানার সাবেক ওসি কামালউদ্দিনের মাধ্যমে দুঃস্থ ও দুর্ঘটনাকবলিত চালকদের পরিবারকে আর্থিক অনুদান প্রদানের স্বচিত্র সংবাদও স্বাক্ষী হয়ে আছে।

সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিথ ছিলেন অটো রিক্সা (ইজিবাইক) মালিক শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদ এর যুগ্ম আহবায়ক আবদুল জব্বার, আজিজুল হকআনোয়ার হোসেন,ফতুল্লা-শিবু মার্কেট অঞ্চলের মনির হোসেন, ধর্মগঞ্জ রিকশা মালিক-শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি নুর ইসলাম,সাধারন সম্পাদক শরীফ হোসেন,পাগলা শাখার সাধারন সম্পাদক সালু পাটোয়ারীসহ নেতাকর্মীরা।

সাংবাদিক সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নে উত্তরে অটো রিক্সা (ইজিবাইক) মালিক শ্রমিক সংগ্রাম পরিষদ এর যুগ্ম আহবায়ক আজিজুল হক হাওলাদার বলেন, ফতুল্লার নয়ামাটি চিতাশাল খালপাড় এলাকার মোঃ শহর আলীর ছেলে মোঃ শফিক, মৃতঃ মান্নান শেখ এর ছেলে মোঃ সামাদ শেখ, মান্নান এর ছেলে মোঃ কুদ্দুস শেখ ও মৃতঃ আব্বাস আলীর ছেলে মোঃ রাজিব বেশ কিছুদিন ধরে আমাদের সংগঠনের কাছে ০২ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে আসছিল। আমরা তাদের দাবী না মানায় ওই চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীরা আমাদের সংগঠনের শ্রমিকদের মারধর করা সহ গাড়ী ভাংচুর এবং টাকা-পয়সা ছিনিয়ে নেয়। আমরা ওই সন্ত্রাসীদের অত্যাচার আর মেনে নেব না। আমরা ইতি মধ্যে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবর স্বারকলিপি দেয়া হবে।

তিনি আরো বলেন,৭৪ শ্রমিক সংগঠনের সমন্বয় কমিটির নেতাদের সাথে আলোচনা চলছে,প্রশাসন যদি এ ব্যাপারে কোন হস্তক্ষেপ না করেন তবে জেলা প্রশাসনসহ মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি প্রদান করে পরবর্তী আন্দোলনে কর্মসূচী ঠিক করা হবে।