আমরা আমাদের ছেলেকে ফিরে পেতে চাই- সংবাদ সম্মেলনে রনির স্বজনেরা

রাজনৈতিক ডেস্ক(আজকের নারায়নগঞ্জ):  নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদল সভপাপতি মশিউর রহমান রনিকে ফিরে পেতে সংবাদ সম্মেলনে কাঁদলেন স্বজনরা। কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, আমাদের রনিকে তুলে নিয়ে গেছে। আমরা আমাদের ছেলেকে ফিরে পেতে চাই। রবিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন করে রনির পরিবার।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সহ সভাপতি ও সদর উপজেলার চেয়ারম্যান এড. আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, মশিউর রহমান রনির বড় ভাই আবু সাঈদ রুবেল, ছোট ভাই মহিমুর রহমান রানা, দুই খালা রাশিদা বেগম ও জাহানারা বেগম, মামাতো ভাই জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, বড় ভাবী সানজিদা ইসলাম শিখা, মামাতো ভাবী ডলি আক্তার প্রমুখ।
এ সময় মশিউর রহমান রনির ছোট ভাই রানা বলেন, শনিবার সকাল ১০টায় পারিবারিক কাজে ঢাকা যায় রনি। এরপর রাত সাড়ে ১০টার দিকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি ফোন করে জানায়, ডিবি পরিচয়ে সাদা পোশাকে কিছু লোক রনিকে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে গেছে। এ খবর আত্মীয় স্বজনকে জানানোর পরে অনেক খোজাখুজি করেও রনিকে খুজে পাওয়া যায়নি।
রনির ছোট ভাই রানা আরো বলেন,এ বিষয়ে ফতুল্লা থানায় জিডি করতে গেলে আমাদের জিডি নেয়া হয়নি। এদিকে রবিবার বিকেলে পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দিতে গেলেও পুলিশ সুপারের দেখা মেলে নি।
মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান সাংবাদিকদের বলেন, রনির বাবা মা বিদেশে আছেন এমন অবস্থায় সে ঢাকায় গেলে তাকে ডিবি পরিচয়ে কেউ তুলে নিয়ে গেছে। ১৮ ঘন্টার মতো হয়ে গেছে কিন্তু কোন খোঁজ পাচ্ছি না। আমরা প্রশাসনের কাছ থেকেও সহায়তা পাই নাই। যারাই রনিকে তুলে নিয়ে যাক কিংবা অপহরণ করুক তারা যেন রনিকে ফিরিয়ে দেন।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, তাঁর বিরুদ্ধে কোন মামলা থাকলে তাকে এরেস্ট দেখানো হোক এবং আদালতে তোলা হোক। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যদি তাকে আটক করে তাহলে তারা এটা বলে রনির পরিবারকে আশ্বস্ত করুক।
উল্লেখ্য, প্রসঙ্গত, গত ১০ সেপ্টেম্বর (সোমবার) নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমানকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েফেসবুকে রনি একটি স্ট্যাটাস দিয়ে ব্যাপক আলোচিত-সমালোচিত হন। নিজ দলের নেতা-কর্মীদের কাছে সাহসী, বীর খেতাবসহ প্রশংসিত হলেও ছাত্রলীগসহ অন্যদের কাছে বেশ সমালোচিত হয়েছিলেন।