সোনারগাঁয়ে একই পরিবারের পাঁচজন বিরল রোগে আক্রান্ত

সোনারগাঁ(আজকের নারায়নগঞ্জ):  নারায়নগঞ্জ সোনারগাঁ সনমান্দি ইউনিয়ন ৮ নং ওয়ার্ড পাঁচানি গ্রামের একই পরিবারের পাঁচজন বিরল রোগে আক্রান্ত। তবে কেউ বলছেন গোদ রোগ, ফিস্টুলা কিংবা পাইলিয়া। কিন্তু চিকিৎসা করাতে আজ তারা নি:স্ব। বর্তমানে অর্থের অভাবে সুচিকিৎসা নিতে পারছেনা অসহায় পরিবারটি। নিজেদের যতটুকু জমিজমা ছিল চিকিৎসা করাতে গিয়ে তা সব বিক্রি করে নি:স্ব কহয়ে গিয়েছে।

সমাজের বিত্তবান ব্যক্তি থেকে শুরু করে চেয়ারম্যান, সাংসদ, মেম্বার পর্যন্ত সকলের দ্বারে দ্বারে ঘুরে কোন সাহায্য না পেয়ে অবশেষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে মা সম্মোধন করে সুচিকিৎসার আবেদন জানিয়েছেন পরিবারের অসুস্থ্য লোকজন। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার পাঁচানি গ্রামের রশিদ মিয়া (৬৫), তার তিন পুত্র জজ মিয়া (৪৫), জহিরুল ইসলাম (৪০) ও তাজুল ইসলাম (১৫) এবং জজ মিয়ার ছেলে নজরুল ইসলাম (১৪) তারা পাঁচজন এই রোগে আক্রান্ত।

এরমধ্যে তাজুল ইসলাম নবম শ্রেণির ছাত্র ও নজরুল ইসলাম সপ্তম শ্রেণির ছাত্র। এই ৫ জনের প্রত্যেকেরই দুটি পা ফোলা। এতে কেউ বলছে গোদ রোগ, ফিস্টুলা কিংবা পাইলিয়া। ডাক্তারদের নিকট চিকিৎসা করতে নিয়ে যাওয়ার পর ও সুনির্দিষ্টভাবে কেউ বলতে পারছে না কোন রোগ। আর এ রোগ থেকে পরিত্রান পেতে অসহায় পরিবার একের পর এক চিকিৎসা নিয়ে নি:শ্ব হয়ে অমানবিক জবিন যাপন করছে। কিন্তুু কেউ সাহায্য সহযোগীতা করছে না। এমনকি চেয়ারম্যান, মেম্বারের নিকট থেকে এক মুঠো রিলিফের চালও পাচ্ছে না বলে জানায় জজ মিয়া।

এক বছর পূর্বে জাহিদ হাছান জিন্নাহ চেয়ারম্যানের নিকট প্রতিবন্ধী ভাতা পাওয়ার আশায় কাগজ পত্র জমা দিয়েও কোন লাভ হয়নি বলে জানায় পরিবারের সদস্যরা। শুধু তাই না ওই ওয়ার্ডের হারুন মোল্লা মেম্বারের নিকট ভিজিএফ চালের কার্ড চাইতে গেলে বিভিন্ন তালবাহানা করে ফিরিয়ে দেয়া হয় তাজুল ইসলামকে।

তবে এ ব্যাপারে হারুন মেম্বারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযোগটি সম্পূর্ন মিথ্যা বলে জানান। সেই সাথে পরিষদ থেকে সকল সুযোগ সুবিধা দিয়ে থাকেন বলেও অবহিত করেন।

এদিকে অসহায় পরিবারের সদস্যরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন।