সোনারগায়েঁ বিএনপির ৪৪ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

আইন-আদালত(আজকের নারায়নগঞ্জ):  সোনারগায়ের সাদিপুর ইউনিয়ন বিএনপির ৪৪ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে স্থানীয় থানা   পুলিশ।নাশকতার প্রস্তুতির অভিযোগ এনে রোববার (৯ সেপ্টেম্বর) রাতে তালতলা ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনিরুজ্জামান বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন।

সাদিপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি কামরুজ্জামান মাসুম, সাধারণ সম্পাদক সেলিম সরকার, সোনারগাঁ থানা ছাত্রদল নেতা মোহাম্মদ কাউসার, আল আমিন হোসেন অভি, আজিজুল ইসলাম আজিজ, মনিরুজ্জামান লিটন, সোনারগাঁও তাঁতী দলের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম, জসিমউদ্দিন, সোহেল, নাজমুল, সালাম ভূঁইয়া, জামাই সেলিম, লিটন মিয়া, মোস্তফা, রিপন শিকদার, মামুন শিকদার, শাহিনুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, হাফিজুল ইসলাম, রিয়াজ মোল্লা, অ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম, নাসির উদ্দিন, রোকনজসিম উদ্দিন, সালাম, জুবায়ের, ইসহাক মাওলানা, শফিকুল ইসলাম, সামসুদ্দিন, রফিকুল ইসলাম ভূঁইয়া, ইকবাল হোসেন, ইব্রাহিম, মোমেন, মাইনউদ্দিন, সুমন মোল্লা, রমজান আলী, আবু বকর, হাফিজুল, নাজমুল মোল্লা, আবু বকর, রমজান, শফিক বিহারীসহ অজ্ঞাত ৩০ জনকে এ মামলার আসামী করা হয়।

এদিকে আটক সাদিপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সেলিম সরকারকে এ মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে আদালতে পাঠায় পুলিশ।

মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোরশেদ আলম জানান, সেলিম ও কামরুজ্জামান সাদিপুর ইউনিয়ন বিএনপির নেতাকর্মীদের নিয়ে শনিবার (৮ সেপ্টেম্বর) রাতে নয়াপুর মাঠে সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্র ও বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে বিস্ফোরকদ্রব্য দিয়ে হামলার ষড়যন্ত্র করছেন বলে সংবাদ পায়।

খবর পেয়ে তালতলা পুলিশ ফাঁড়ির উপ পরিদর্শক (এসআই) শফিকুল ইসলাম ফোর্স নিয়ে ওই সভাস্থলে অভিযান চালায়। এ সময় থেকে সেলিমকে আটক করা হলেও পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে অন্যরা পালিয়ে যায়।