একজন গিটার কিংবদন্তি

[উৎসর্গঃ এনামুল কবির]

– দিলীপ গুহঠাকুরতা

মধুমতি নদীর কাছে সুন্দর একটি গ্রাম,
নড়াইল জেলার সেই গ্রামটি ডুমুরিয়া নাম।
গ্রামের মাঝে বনেদি এক শেখের পরিবার,
সেই বাড়ির একটি ছেলে মানিক নাম তার।

বাবা তাহার চাকরি করেন কোলকাতা শহরে,
হুগলী নদীর পারে থাকেন বাটানগরে।

নড়াগাতি ফিরে এলেন দেশ বিভাগের পরে,
গ্রামে এসে মানিক কভু থাকতো নাকো ঘরে।
সবুজ শ্যামল পল্লী গাঁয়ে আনন্দে আটখানা,
খেলাধুলায় থাকতো মেতে দিনের চৌদ্দ আনা।
মাছ ধরা, গাছে ওঠা, হাডুডু, ফুটবল খেলা,
সাঁতার কেটে নদীর জলে– কেটে যেতো বেলা।
সেই বয়সে আরো ছিল বিশেষ একটা গুন,
মিষ্টি মধুর সুরে মানিক বাঁশি বাজায় দারুণ।

এমনি করে যাচ্ছে চলে দিনের পরে মাস,
এক বিকেলে এলেন সেথা বাড়ির জামাই খাস,
দু’দিন থেকে ঢাকার আলয় এলেন যখন ফিরে,
সঙ্গে করে নিয়ে এলেন প্রিয় শ্যালকটিরে।

পুরান ঢাকায় ভর্তি হলো মানিক এক স্কুলে,
লেখাপড়ায় মন দিলো সে দুষ্টুমিটা ভুলে।
পড়াশোনার মাঝেও চলে বাঁশির অনুশীলন,
একই সাথে মাউথ অর্গ্যানে হলো গানের মিলন।
সুরের ঐন্দ্রজালে বিভোর তনু-অন্তর মন,
অল্পদিনেই মানিক ক্লাসের সবার আকর্ষণ।

সহপাঠী বন্ধুরা সব বাঁশি শুনতে চায় –
ক্লাসের শেষে মানিক অনেক গানের সুর বাজায়।
শিক্ষকদের কাছেও মানিক হোলো ভীষণ প্রিয়,
বিদ্যালয়ে এমন ছেলের নেইকো তুলনীয়।

এরই মাঝে আক্রান্ত সে হঠাৎ ভীষণ জ্বরে,
থেমে থেমে জ্বর আসে তার,ওষুধে না ধরে।
সাথে থাকে গেঁটে গেঁটে অসহ্য যন্ত্রণা,
নন্দী বাবু দেখে বলেন, “রোগটা সহজ না।
রিওমেটিক ফিবার – বাংলায় বাতজ্বর রোগের নাম,
প্রেসক্রিপশনে ওষুধ আর পথ্য লিখে দিলাম।
সেই সাথে তার নিতে হবে বিশ্রাম একটানা,
কোন রকম বাঁশি কিন্তু বাজানো যাবেনা।“

অনেক প্রিয় বাঁশিকে সে দিলো চির বিদায়,
তারপরেও সুরকে কভু ছেড়ে থাকা যায় !
অমন দিনে গিটারকে সে নিলো কোলে তুলে,
ত্রি-অক্টেভের সুরের মাঝে থাকতো ব্যাথা ভুলে।

ক’টা বছর কষ্টের পর রোগ নিরাময় হলো,
এই সময়ে গিটারে তার হাতটি বসে গেলো।
এরপর শুধু এগিয়ে যাওয়া সুরের পথ ধরে,
নিত্য নতুন গান তুলে যান গিটারের ছয় তারে।

মাসে মাসে বেতারের প্রগ্রামে গান বাজান,
মঞ্চে নানান অনুষ্ঠানে শ্রোতাদের মন মাতান।

পেলেন অনেক আদর মানিক – গিটার বাজনোর জন্য।
যুবক বয়সে বঙ্গবন্ধুর ছিলেন স্নেহধন্য।

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের যত প্রিয় গান,
গিটার তারে সুর তোলা তাঁর বড় অবদান।

বাংলা গানের স্বরলিপি করেন অগণিত,
গিটারের সিডিতে সে গান রাখছেন অবিরত।

বাংলা অনেক মৌলিক গানে তিনি দিয়েছেন সুর,
গানও তিনি করেন ভালো – কন্ঠ সুমধুর।

গিটারের কিংবদন্তি, সঙ্গীতের প্রবীর,
সুরের মানিক এখন দেশের এনামুল কবির।

[গতকাল গিটার লেজেন্ড এনামুল কবির স্যারের সংবর্ধনা উপলক্ষ্যে লিখিত]