সাফ ফুটবলঃ সন্ধ্যায় পাকিস্তানের মুখোমুখি বাংলাদেশ

ক্রীড়া ডেস্ক(আজকের নারায়নগঞ্জ):  ফুটবলে অনেক দিন মুখোমুখি হয় না বাংলাদেশ ও পাকিস্তান। পাক্কা পাঁচ বছর।

সবশেষ ২০১৩ সালের ৫ সেপ্টেম্বর নেপালের কাঠমান্ডুতে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের গ্রুপ ম্যাচে সর্বশেষ দেখা হয়েছিল দুই দেশের। সেমিতে ওঠার জন্য মাস্ট উইন ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছিল ২-১ গোলে। আর সাত বছর আগে কার বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে ফুটবল লড়াইয়ে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান মুখোমুখি হয়েছিল। সেবার বিশ্বকাপ ফুটবলের প্রাক বাছাইয়ে বাংলাদেশ ৩-০ গোলে পাকিস্তানকে হারিয়েছিল।

একই সঙ্গে পাকিস্তানের বিপক্ষে জয়ের পাল্লাটা বাংলাদেশের দিকেই ঝুকে আছে। এ পর্যন্ত ১৭ বার মুখোমুখি হয়ে বাংলাদেশ জিতেছে সাত বার। ড্র হয় ৫ ম্যাচ। আর ৫ ম্যাচ জিতেছে পাকিস্তান।

এ সকল সমীকরন নিয়েই  সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে পাকিস্তানের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ। আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে শুরু হতে যাওয়া ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি) ও চ্যানেল নাইন।

আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে সাফের দ্বাদশ আসরের প্রথম ম্যাচেই নেপালের বিপক্ষে ২-১ এ জয় পায় পাকিস্তান। ‘এ’ গ্রুপ থেকে শীর্ষ স্থান দখল করাই তাদের মূল লক্ষ্য বলে জানিয়েছেন কোচ হোসে অ্যান্টোনিও নোগুয়েইরা।

৫২ বছর বয়সী এই ব্রাজিলিয়ান বলেন, বাংলাদেশের বিপক্ষে তাদের মাঠেই খেলতে নামছি। অবশ্যই সেটি আমাদের জন্য কঠিন হবে। তবে মাঠের লড়াইয়েই তা স্পষ্ট হবে। আমরা ভালো খেলেছি সেটির ফলাফলও পেয়েছি (নেপালের বিপক্ষে)। আমি আমার দলের থেকে আরও ভালো কিছু আশা করছি। এখান থেকেই সামনে এগিয়ে যেতে চাই।

এই গ্রুপের আরেক ম্যাচে ভুটানের বিপক্ষে ২-০ গোলে জয় পায় বাংলাদেশ। দলের পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট স্বাগতিক কোচ জেমি ডে। তবে তার চোখে প্রতিটি ম্যাচই আলাদা। আর জেতার জন্য ভালো ফুটবলের বিকল্প ভাবছেন না লাল-সবুজদের ইংলিশ এই কোচ।

জেমি বলেন, ভুটানের বিপক্ষে বেশ ভালোই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছি। তবে আরও ভালো ফুটবল খেলার বিকল্প নেই। পাকিস্তান একটি ভিন্ন দল। শারীরিক গঠন অনুযায়ী আমাদের তুলনায় তারা শক্তিশালী। মাঠের লড়াইয়েও তারা বেশ ভালো। সুতরাং সবকিছুতে আমাদের বিশেষ নজর রাখতে হবে।