মাদকসেবনে বাধা পেয়ে মান্দার সতিহাট কে.টি কলেজে হামলা

শিক্ষকসহ আহত-২

নওগাঁ প্রতিনিধি(আজকের নারায়নগঞ্জ): নওগাঁর মান্দায় মাদক সেবনে বাঁধা দেওয়ায় বখাটেদের অতর্কিত হামলায় ২ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।  ঘটনাটি ঘটেছে মান্দার ৫নং গণেশপুর ইউনয়নের সতিহাট কে.টি হাইস্কুল এ্যান্ড কলেজে।

এঘটনায় হামলাকারীরা পালিয়ে যাওয়ায় পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সমাধানের জন্য এক ঘন্টার আল্টিমেটাম দেয়। এর পরেও কোন কর্ণপাত না করায় বাধ্য হয়ে ওই প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ লুৎফর রহমান তিন বখাটের নাম উল্লেখ করে রোববার(১০ অক্টোবর) বিকেলে মান্দা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযুক্তরা হলেন, শ্রীরামপুর গ্রামের গার্মেন্টস ব্যাবসায়ী এনামুল হকের ছেলে সুইট হোসেন, গনেশপুর গ্রামের ফল ব্যাবসায়ী মামুনের ছেলে মিঠু এবং শ্রীরামপুর গ্রামের খাতামুল ইসলামের ভাগ্নে রিমন।

অভিযোগসূত্রে জানা যায়, গত রোববার ওই প্রতিষ্ঠানের এসএসএসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ উপলক্ষে শনিবার রাতে প্রতিষ্ঠানের ভেতরে জিলাপি ভাজার কাজ চলছিলো। এমতাবস্থায় মাদকসেবী বখাটে যুবক সুইট হোসেন এবং মিঠু প্রতিষ্ঠানের ভিতর অনধিকার প্রবেশ করে ওই প্রতিষ্ঠানের এমএলএস সাইফুল ইসলামকে প্রতিষ্ঠানের একটি কক্ষে মাদক (গাঁজা) সেবন করার জন্য খুলে দিতে বলেন। ওইসময় সাইফুল ইসলাম তাদের প্রতিবাদ করায় পরদিন সকালে প্রতিষ্ঠানের ভেতর আবারো অনধিকার প্রবেশ করে ধুমপান করার সময় তাদেরকে নিষেধ করায় তার উপর অতর্কিতভাবে হামলা চালায়। এসময় তাকে উদ্ধার করতে গিয়ে ওই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত মিজানুর রহমান নামে এক মৌলভী শিক্ষকও আহত হয়েছেন। এরপর আহতদের উদ্ধার করে মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করিয়ে দেয়া হয়। এঘটনায় অত্র এলাকাজুড়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। স্থানীয়রা তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

সতিহাট কে.টি হাইস্কুল এ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ লুৎফর রহমান বলেন, প্রতিষ্ঠান চলাকালিন সময়ে প্রতিষ্ঠানের ভিতর অনধিকার প্রবেশ করে অতর্কিত হামলা খুবই দুঃখজনক। আগামীতে যেনো আর এরমক কোন অপ্রীতিকর ঘটনার পূনরাবৃত্তি না হয় সেজন্য বখাটেদের শাস্তির দাবিতে মান্দা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

এব্যাপারে মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহিনুর রহমান বলেন, বিষয়টি জানার পর তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থালে পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।