তাদের কয়েকজন ভাড়াখাটা বক্তাও রয়েছে’

ওসমান পরিবারের খুন, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজির পক্ষে বক্তৃতা করার জন্যে

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্কঃ ওসমান পরিবার বাঘকে যতটা ভয় না পায় তার থেকে বেশি নির্বাচনকে ভয় পায়’ মন্তব্য করেসাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বী বলেছেন, কারণ তারা জানে যদি মানুষ স্বাধীনভাবে ভোট দেয়ার সুযোগ পায় তাহলে তাদের জামানত থাকবে না। এজন্য তারা নারায়ণগঞ্জকে কুক্ষিগত করে রাখতে চায়।

শুক্রবার (৮ অক্টোবর) সন্ধ্যায় আলী আহাম্মদ চুনকা নগর পাঠাগার ও মিলনায়তনে প্রাঙ্গণে সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে আলোক প্রজ্জলন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

নিহত ত্বকীর পিতা রফিউর রাব্বি আরও বলেন, নারায়ণগঞ্জের সবগুলো সংগঠন তারা দখলে নিতে চায়। এজন্য তাদের কয়েকজন ভাড়াখাটা বক্তাও রয়েছে। ওসমান পরিবারের এই ভাড়া খাটা বক্তাদের দায়িত্ব হচ্ছে ওসমান পরিবারের খুন, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজির পক্ষে বক্তৃতা করা। তাদের এই অপর্কমের বিরুদ্ধে যারা কথা বলবে তাদের বিষোদগার এবং গীবত গাওয়া হচ্ছে এই ভাড়া খাটা বক্তাদের কাজ।

রফিউর রাব্বি বলেন, দেশে বিচারব্যবস্থা স্বাধীন হলে একটি হত্যার বিচারের অভিযোগ তৈরি হয়েও তা সাড়ে আট বছর আটকে থাকে না। ত্বকীর ঘাতকরা যেহেতু সরকার দলীয় সেহেতু ত্বকী হত্যার বিচার বন্ধ করে রাখা হয়েছে। আমরা এ বৈষম্যমূলক, গণবিরোধী বিচার-ব্যবস্থার পরিবর্তন চাই। আমরা সংবিধানে উল্লেখিত জনগণের অধিকারগুলোর বাস্তবায়ন চাই। স্বাধীন মত প্রকাশের অধিকার, বিচার পাওয়ার অধিকার, ভোট দেয়ার অধিকার, মানবিক মর্যাদা নিয়ে বেঁচে থাকার অধিকার চাই। স্বাভাবিক মৃত্যুর নিশ্চয়তা চাই, একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ফিরে পেতে চাই।

নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ভবানী শংকর রায়ের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শাহীন মাহমুদের সঞ্চালনায় কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন-সমমনার সভাপতি দুলাল সাহা,জেলা ন্যাপের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আওলাদ হোসেন, জেলা উদীচীর সভাপতি জাহিদুল হক দীপু, জেলা গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়ক তরিকুল সুজন,নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মনি সুপান্থ, সামাজিক সংগঠন বাতায়নের সংগঠক মাইনুদ্দিন মানিক,সিপিবি শহর সম্পাদক সুজয় রায় চৌধুরী বিকু,চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের জেলা সম্পাদক প্রদীপ সরকার প্রমুখ।