সোমবার ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রির কার্যক্রম শুরু

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্ক:  খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় আগামীকাল সোমবার থেকে ৫০ লাখ পরিবারের মাঝে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রির কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। এ কর্মসূচির মাধ্যমে দরিদ্রদের খাদ্য সহায়তা করা হচ্ছে। খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম আজ রোববার সাংবাদিকদের বলেন, সাপ্তাহিক ও সরকারি ছুটিসহ তিন দিন বন্ধ থাকায় ১ সেপ্টেম্বর থেকে ১০ টাকা কেজি চাল বিক্রি কার্যক্রম শুরু করা সম্ভব হয়নি। তবে প্রতি মাসে ৩০ কেজি করে চাল পাবে ৫০ লাখ পরিবার।

২০১৬ সাল থেকে পরিবারপ্রতি পাঁচজন হিসেবে প্রায় আড়াই কোটি মানুষ বছরের পাঁচ মাস এই সুবিধা পেয়ে আসছেন। নীতিমালা অনুযায়ী প্রতি বছর মার্চ ও এপ্রিল এবং সেপ্টেম্বর- অক্টোবর ও নভেম্বর এ পাঁচ মাস ৫০ লাখ হতদরিদ্র পরিবারের এ চাল বিক্রি করা হয়।

কামরুল ইসলাম জানান, বর্তমানে দেশে ২৮ আগস্ট পর্যন্ত ১৫ দশমিক ৮৪ লাখ মেট্টিক টন খাদ্যশস্য মজুদ রয়েছে। এরমধ্যে চাল ১৩ দশমিক ৩৪ লাখ মেট্টিক টন ও গম ২ দশমিক ৫০ লাখ মেট্টিক টন। সেপ্টেম্বর ,অক্টোবর ও নবেম্বর এই তিন মাসে প্রায় সাড়ে চার লাখ মেট্রিক টন চাল প্রয়োজন হবে।

মন্ত্রী বলেন, ইতোমধ্যে চাল বিক্রির জন্য উপকারভোগীর ৫০ লাখ কার্ড প্রদান করা হয়েছে। কার্ডধারী ব্যক্তিদের মধ্যে ভর্তুকি মূল্যে প্রতি মাসে ৩০ কেজি করে চাল বিক্রি করা হবে। দেশের ৬৪ জেলার ৫০ লাখ দরিদ্র মানুষ বছরে পাঁচ মাসের জন্য এ কর্মসূচির সুফল পেয়ে আসছেন।

খাদ্যমন্ত্রী আরও বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে একটি কমিটি রয়েছে। কমিটিতে জনপ্রতিনিধিরাও রয়েছেন। তারাই হতদরিদ্র পরিবারের সংখ্যা ঠিক করে তাদের কার্ড দেওয়া হয়েছে। কার্ডধারীদের নীতিমালা অনুযায়ী চাল দেওয়া হয়।