দুই দিন পর হোসিয়ারী শ্রমিক কামাল হোসেনের লাশ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার(আজকের নারায়নগঞ্জ): অবশেষে দুই দিন পর শীতলক্ষ্যা নদীতে নিখোঁজ হওয়া হোসিয়ারী শ্রমিক কামাল হোসেনের (১৯) লাশ উদ্ধার করেছে নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স৷ রবিবার সকালে লাশটি সৈয়দপুর কয়লাঘাট এলাকায় লাশটি ভেসে ওঠে৷ পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজন ফায়ার সার্ভিসকে জানালে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকর্মী এসে সকাল সাড়ে ৭টায় কামালের লাশ উদ্ধার করেন৷

পরবর্তীতে লাশটি পুলিশের কাছে হস্থান্তর করেন। মন্ডল পাড়া ফায়ার সার্ভিস এই তথ্যটি নিশ্চিত করেন।

এর আগে গত শুক্রবার (৩১ আগষ্ট) রাত সাড়ে ৯টায় একটি যাত্রীবাহি ট্রলার থেকে নদীতে লাফিয়ে পড়ে সে নিখোজ হয়। কামাল হোসেন সিরাজগঞ্জ জেলার সদর থানার ভাঙ্গাবাড়ি গ্রামের মৃত রহমানের ছেলে। সে ফতুল্লা থানার কাশিপুর খিলমার্কেট এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকতো। শহরের নয়ামাটি এলাকার একটি হোসিয়ারীতে কাজ করতো বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টায় কামাল হোসেন ও তার জমজ ভাই জামাল হোসেন বন্দর খেয়াঘাট থেকে যাত্রীবাহি একটি ট্রলারে উঠে শহরের ফিরছিলেন। ট্রলারটি শীতলক্ষ্যার মাঝামাঝি স্থানে গেলে একটি গম বোঝাই জাহাজ দ্রুতবেগে আসছিল। এতে নদীতে প্রবল ঢেউ সৃষ্টি হলে জাহাজের সঙ্গে ট্রলারের মুখোমুখী সংঘর্ষের আশঙ্কায় কামাল হোসেন ও সুমন নামে আরো এক যাত্রী জীবন বাঁচাতে নদীতে লাফিয়ে পড়ে।

এ সময় কামালের ভাই জামাল হোসেন তাদেরকে উদ্ধার করতে নদীতে লাফিয়ে পড়েন। তিনি সুমনকে উদ্ধার করতে পারলেও নিজ জমজ ভাই কামাল হোসেন নদীতে তলিয়ে গিয়ে নিখোঁজ থাকে। খবর পেয়ে বন্দর ও শহরের মন্ডলপাড়া ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার কর্মীরা এসে উদ্ধার অভিযান চালায়।

পরে ঢাকার ফায়ার সার্ভিসের সদর দপ্তর থেকে ৫ সদস্যের ডুবুরী দল ঘটনাস্থলে এসে তল্লাশি অভিযান শুরু করে। তখন কোনো খোজ না পাওয়া গেলেও রবিবার সকালে সৈয়দপুর কয়লাঘাট এলাকায় হোসায়ারি শ্রমিক কামাল হোসেনের লাশ ভেসে ওঠে।