রূপগঞ্জে শীতলক্ষ্যার তীরে চলছে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্কঃ

উচ্ছেদ কার্যক্রমের দ্বিতীয়দিনে রূপগঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীর পূর্ব তীরে বিভিন্ন ধরণের কারখানা,দোকান ঘর ও দুইতলা ভবনসহ শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দর কর্তৃপক্ষ।

নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট মাহবুব জামিলের নেতৃত্বে মঙ্গলবার ( ২ ফেব্রুয়ারী ) দুপুর ১২টা থেকে বিকাল ৪টা র্পযন্ত উপজেলার নোয়াপাড়া বাজার এলাকায় এই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। বিপুল সংখ্যক পুলিশ, নৌ-পুলিশ ও আনসার সদস্য উচ্ছেদ অভিযানে সহযোগিতা করে।

এ সময় নদীর জায়গা দখল করে সীমানা পিলারের অভ্যন্তরে অবৈধভাবে গড়ে উঠা একটি দুইতলা ভবন, সূতার কারখানা, বেশ কয়েকটি সেমিপাকা ঘর ও টং দোকানসহ অন্তত শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়।

বিআইডব্লিউটিএ’র নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের যুগ্ম- পরিচালক শেখ মাসুদ কামাল জানান, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে শীতলক্ষ্যা নদীতে সোমবার থেকে ৪দিন ব্যাপী এ অভিযান চলবে।

প্রথম দুই দিনে রূপগঞ্জে তারাবো, রূপসী, পূর্বগ্রাম, এলাকায় অভিযানে একটি এক্সাভেটর (ভেকু) দিয়ে পাকা দোতলা ভবন ৩টি, ৭টি পাকা একতলা ভবন, ১৭টি সেমিপাকা ঘর, ৪৯ টি টিনশেড দোকান, ৩০ টি ছোট বড় শিল্পকারখানার গাইড ওয়াল, ৩টি ওয়্যার হাউজ, শবনম ভেজিটেবল ওয়েল মিল ও মোনাকো অটোরিক্সার কারখানারসহ প্রায় দেড় শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়।

সুলতানা কামাল ব্রীজ সংলগ্ন তারাব এলাকা থেকে কাঞ্চন ব্রীজ পর্যন্ত শীতলক্ষ্যার উভয় তীরে অভিযান চলবে। দখলমুক্ত করে দখলমুক্তস্থানে ওয়াকওয়ে ও বনায়ন করা হবে।

উচ্ছেদ অভিযানে আরো উপস্থিত ছিলেন- বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট মাহবুব জামিল ও উপ-পরিচালক মোবারক হোসেনসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।