সিদ্ধিরগঞ্জে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার দায় স্বীকার ঘাতক স্বামীর

সিদ্ধিরগঞ্জ(আজকের নারায়নগঞ্জ):  সিদ্ধিরগঞ্জে পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে ঘাতক স্বামী জনি মিয়া। রোববার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মেহেদী হাসানের আদালত তার এ জবানবন্দি রেকর্ড করেন। জনি সিদ্ধিরগঞ্জের শান্তিনগর এলাকার বাবুলের ছেলে।

কোর্ট পুলিশের এসআই কামাল হোসেন এর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, জবানবন্দি গ্রহণ শেষে জনিকে আদালতের নির্দেশে জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এসআই জসিম উদ্দিন জানান, ২৪ আগষ্ট গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টায় সদর থানার গোদনাইল চৌধুরিবাড়ি শান্তিনগর এলাকায় জনি তার স্ত্রী আলো বেগমকে ঘুড়ি উড়ানোর নাটাই দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে।

নিহত আলো বেগম (২২) মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর থানার শেলামতি গ্রামের মৃত রফিকের মেয়ে। তিনি আরো জানান, ৫ বছর আগে আলো বেগমকে বিয়ে করে জনি। বিয়ের পর থেকেই তাদের মধ্যে নানা বিষয় নিয়ে কলহ চলে আসছিল। হত্যাকান্ডের ঘটনাস্থল থেকে ঘুড়ির নাটাই ও রক্তমাখা কাপড় উদ্ধার করা হয়েছে।

নিহত আলো বেগমের মামা আদর আলী জানান, শিশু কালে আলোর মা-বাবা মারা যায়। এরপর থেকে আমরা আলোকে লালন পালন করি। সুখের কথা চিন্তা করে মেয়েটা বিয়ে দিয়ে ছিলাম। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য আলোকে প্রায় সময় তার স্বামী জনি মারধর করত।

সম্প্রতি জনির পরিবার আমাদের কাছে দুই লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। দাবীকৃত যৌতুকের টাকা না পেয়েই আলোকে হত্যা করে। আমি এর বিচার চাই।