সিদ্ধিরগঞ্জে নেশাগ্রস্ত স্বামীর হাতে স্ত্রী খুন,মামলা

সিদ্ধিরগঞ্জ(আজকের নারায়নগঞ্জ):   সিদ্ধিরগঞ্জে নেশাগ্রস্থ স্বামীর হাতে স্ত্রী খুনের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় ৪ জনকে আসামী করা হয়েছে। শুক্রবার রাতে নিহত গৃহবধু আলোর মামা আদর বাদি হয়ে এই মামলা দায়ের করেন (মামলা নং-৪৭)। মামলায় আলোর স্বামী জনি, শ্বশুর বাবুল, শাশুড়ি বেবী, এবং দেবর মুন্নাকে আসামী করাহয়।

এই মামলার এজাহার নামীয় দুই আসামী নিহত গৃহবধু আলোর স্বামী জনি ও শাশুড়ি বেবী আটক হলেও ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে অপর দুই আসামী শ্বশুর বাবুল ও দেবর মুন্না।

উল্লেখ্য বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইল চৌধুরিবাড়ি শান্তিনগর এলাকায় নেশাগ্রস্থ স্বামী জনি ঘুড়ির নাটাই দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে গৃহবধু আলোকে। ঘটনার পর ওই বাড়ির মালিক ও স্থানিয়রা ঘাতক স্বামীকে আটক করে পুলিশে খবর দিলে ওই রাতেই তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

শুক্রবার ভোরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। শুক্রবার বিকেলে ময়নাতদন্ত শেষে নিহত আলোর লাশ তার আত্মীয়দের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরে শুক্রবার বাদ মাগরিব গোদনাইল সৈয়দ পাড়া কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়। এদিকে নিহত আলোর একটি দুই বছরের ছেলে সন্তান রয়েছে। বর্তমানে ওই বাচ্চাটি আলোর নানীর বাড়িতে রয়েছে।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুস সাত্তার জানায়, নিহত গৃহবধু আলো হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহতের মামা আদর বাদী হয়ে ৪ জনের নামে মামলা করেছে। আমরা দুইজনকে আটক করেছি। বাকীদের আটকের জন্য আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। খুব শীঘ্রই আমরা তাদের আইনের আওতায় আনতে পারবো। তবে এই মামলার মূল যেই আসামী আলোর স্বামী হত্যাকান্ডের পর থেকেই আটক রয়েছে।