নওগাঁর পোরশায় মোবারক হোসেন প্রতিবন্ধি স্কুলের শিক্ষকদের মানবেতর জীবন যাপন!

 

নওগাঁ  থেকে মাহবুবুজ্জামান সেতু ( আজকের নারায়নগঞ্জ) : চচনওগাঁর পোরশা উপজেলার নিতপুর ১ নং ইউনিয়নে ৪ চনং ওয়ার্ড কপালিড় মোড় শোভাপুর নামক স্থানে ২০১৩ সালে ব্যাক্তিগত উদ্যেগে নিজ পৈত্রিক ” সম্পত্তিতে গড়ে উঠে পিতার নামে দেওয়া মোবারক হোসেন প্রতিব্ন্ধী বিদ্যালয়।

প্রতিষ্ঠাতা মোঃ শাহজাহান আলী জানানোর পিতার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এবং তিনি একজন শিক্ষা অনুরাগীসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িয়ে ছিলেন তাই আমরা পিতার নামে বিদ্যালয়টি স্থাপন করি। নিতপুরে প্রতিব্ন্ধী ছাত্র ছাত্রীরা প্রায় হত দরিদ্র।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মওদুদ আহম্মেদ জানান ১১জন শিক্ষক এবং ৬ জন কর্মচারীদের নিয়ে প্রথমে অনেক কষ্ট করতে হয়েছে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে বাচ্চাদের এবং তার পরিবারদের সাথে কথা বলতে হয়েছে অনেকেই বলতেই চাননি যে তাদের ছেলে প্রতিব্ন্ধী আছে। ঘরের ভিতরে রেখে তাদের সন্তানদের চিকিৎসা করা হত বাইরে প্রকাশ করতনা । আমার ১৭ স্টাফদের নিয়ে বিনা বেতনে কাজ করে চলেছি।
উপজেলা প্রসাশন এবং সংসদ সদস্য নওগাঁ ৪৬-১ বাবু সাধন চন্দ্র মুজুমদারের সু- নজরে কিছুটা সহযোগীতা পেয়ে বিদ্যালয়ের অবকাঠামো ঠিক করা হয় এবং এলাকার প্রতিব্ন্ধীদের উন্ননের জন্য বিদ্যালয়ের বাকিঁ কাজ গুলো করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মাননীয় সংসদ সদস্য।
ব্যতিক্রমী এই বিদ্যালয়ে প্রতিনিয়ত কোন না কোন খরচ আছে কারন এখানে প্রতিব্ন্ধী ছাত্র ছাত্রী হওয়ায় ক্লাশ শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত তাদের সেবা দিতে হয়। এতে করে যত্ন নেওয়ার সব সামগ্রী লাগে। মরহুম মোবারক হোসেনের আরেক ছেলে মোঃ মাহাবুর রহমান (আনন্দ) ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে চাকুরী করেন পিতার প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই অনেক সময় টিফিনের খাওয়া সহ এই সব খরচ গুলো বহন করে থাকেন।

বিদ্যালয়ের আরো অনেক কিছু প্রয়োজন যেমন- চিকিৎসা ব্যাবস্থা, বিনোদন, থেরাপি ইত্যাদি। এছাড়াও বিদ্যালয়ে আসার জন্য যোগাযোগ ব্যাবস্থা আরো উন্নয়ন করতে হবে। এলাকাবাসি জানান এই রকম মানব সেবামূলক কাজ দেখে আমরা অত্যন্ত খুশি। অামরা প্রতিষ্ঠানের সাথে সংশ্লিষ্টদের সাধুবাদ জানায়।

শিক্ষক শিক্ষারা জানান মানবেতর ভাবে জীবন চালিয়ে আমরা দীর্ঘ ৫ বছর যাবৎ অনেক কষ্ট করে এই প্রতিষ্ঠানে কোন প্রকার পারিশ্রমিক ছাড়াই সেবা দিয়ে যাচ্ছি। আমাদের বিশ্বাস একদিন সরকারি সব সুবিধা দিবে “সরকার। বর্তমান সরকার প্রতিব্ন্ধী প্রতি সু-নজর রয়েছে এবং কিছু প্রতিব্ন্ধী বিদ্যালয় সরকারি করন করেছেন। আমরা আশাবাদী একদিন আমাদের এই বিদ্যালয়টিও সরকারি হবে।

বর্তমানে এই বিদ্যালয়ে প্রতিব্ন্ধী শিক্ষার্থী ২৫০ জন প্রতিব্ন্ধী ছাত্র ছাত্রীদের বড় পরিচয় হয়ে দাঁড়িয়েছে মোবারক হোসেন প্রতিব্ন্ধী বিদ্যালয়। বর্তমানে চনওগাঁ জেলায় বিদ্যালয়টির অনেক সুনাম রয়েছে