ফতুল্লা(আজকের নারায়নগঞ্জ):

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার কুতুবপুরে মাদকের হট স্পট হিসেবে পরিচিত আকনপট্টি এখানে হাত বাড়ালেই পাওয়া যায় ইয়াবা, ফেন্সিডিল,গাজাঁ ও মরন নেশা হিরোইন আর এই মাদক বিক্রি ও সেবনের ব্যাপারটি অনেক বছর ধরেই ওপেন সিক্রেট৷

আর মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে এই অঞ্চলের মানুষ কতটা অসহায়,তা এবার ফুটে উঠলো বেশ ভালোভাবেই৷

আজ বুধবার (১১ই নভেম্বর) ২০ পিস ইয়াবা সহ মনির নামে এক মাদক ব্যাবসায়ীকে হাতেনাতে আটক করে স্থানীয় কয়েকজন ৷

আর এ নিয়ে দীর্ঘসময় উত্তেজনা, পক্ষে- বিপক্ষে স্থানীয় দুই গ্রুপের উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়ের পরে ওই মাদক ব্যবসায়ী পালিয়ে যাওয়ার মতো নাটকীয় ঘটনা ঘটায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, মনির নামের এক মাদক ব্যাবসায়ীকে ২০ পিস ইয়াবাসহ আজ দুপুর তিনটার দিকে আটক করা হয়৷
স্থানীয় জামাল, জাফর,বাবরসহ আরো কয়েকজন তাকে আটক করে ফতুল্লা থানায় খবর দেয়।

এসময় তাদের জেরার মুখে মনির অসংলগ্ন কথাবার্তা বলতে থাকে। বিষয়টি ফতুল্লা থানায় অবহিত করা হয়। কিন্তু পুলিশ আসার আগেই ঘটে নাটকীয় ঘটনা৷

এলাকাবাসীর অভিযোগ, পুলিশ ঘটনাস্থলে আসার আগেই মানিক, শাহআলম, লিটন সহ অজ্ঞাতনামা আরো কয়েকজন এসে মাদক ব্যবসায়ী মনিরের পক্ষে কথা বলেন৷

এ নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।একপর্যায়ে সুযোগ বুঝে মনির পালিয়ে যায়। এ সময় তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরবর্তীতে এসআই আরিফ তালুকদার ও সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনায় এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। (ঘটনার বেশকিছু ভিডিও আমাদের নিকট সংরক্ষিত রয়েছে।)

প্রসঙ্গত, গোটা কুতুবপুর ইউনিয়নে অবাধে মাদক ব্যবসা চলছে বলে অভিযোগ রয়েছে। স্থানীয় কয়েকজনের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসার বখরা নেওয়ারও অভিযোগ রয়েছে৷

এই ইউনিয়নে শতাধিক মাদক ব্যবসায়ী চক্র সক্রিয় রয়েছে বলে বিভিন্ন সময়ে গণমাধ্যমের প্রতিবেদনগুলোতে উঠে এসেছে৷
সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে যাওয়া এসআই আরিফ তালকুদার বলেন, মাদক কুতুবপুরের ক্যান্সারে রূপ নিয়েছে।
আজকের ঘটনায় মনির আটকের পাঁচ মিনিটের মধ্যেই আমি ফোর্স নিয়ে সেখানে যাই৷ কিন্তু এর আগেই সে পালিয়ে যায়৷ এ ঘটনার রহস্য খতিয়ে দেখা হবে ও মাদক ব্যবসায়ীদের শাস্তি নিশ্চিত করা হবে।