ফতুল্লা ( আজকের নারায়নগঞ্জ): ফতুল্লা থানাধীন পশ্চিম দেওভোগ পানির ট্যাংকি এলাকায় মো: মামুন অর রশীদকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে মামা শ্বশুর কাদের মাহবুব খান বাবু, কাউসার ইকবাল খান মাসুম ও খালু শ্বশুর ফারুক মোল্লাগংরা।

সোমবার (৯ নভেম্বর) বিকালে সংঘটিত এ ঘটনায় আহত মামুনের স্ত্রী খায়রুন নাহার স্নিগ্ধা বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।

খায়রুন নাহার স্নিগ্ধা সাংবাদিকদের বলেন, বাড়ী করার জন্য ৪ শতাংশ জমি তার মা তাকে দান করেন। অর্থনৈতিক জটিলতার কারনে সেখানে তাৎক্ষনিক বাড়ী নির্মান করা সম্ভব হয়নি। চলতি বছরে ওই জমিতে নির্মান কাজ করতে গেলে বিবাদীরা খায়রুন নাহার স্নিগ্ধা‘র কাছে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করেন এবং টাকা না দিলে বাড়ী নির্মান করতে দিবেনা বলে হুমকি দেন।

পরে এ বিষয়ে গত ১৫ অক্টোবর ফতুল্লা থানায় একটি জিডিও দায়ের করেন খায়রুন নাহার স্নিন্ধ। যার নং ৮৯১।

তিনি আরও জানান, সোমবার ওই জমি পরিদর্শনে গেলে পুনরায় তারা চাঁদা দাবী করেন। টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে খায়রুন নাহার স্নিগ্ধার মামা কাদের মাহবুব খান বাবু চাপাতি দিয়ে তার স্বামী মামুনকে এলোপাথারিভাবে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এসময় তার আরেক মামা কাউসার ইকবাল খান মাসুম তাকে মারধরসহ শীলতাহানি করার চেষ্টা করে এবং আমার গলায় থাকা ১ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নেয়।

পরবর্তিতে লোকজন এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায়। পরে আত্মীয়স্বজনদের সহযোগীতায় আমার স্বামীকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাই। হাসপাতালে আমার স্বামীর মাথায় ১৬টি সেলাই করে সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করে।