কাতারকে হারাতে পারলেই ইতিহাস বাংলাদেশের

ক্রীড়া ডেস্ক(আজকের নারায়নগঞ্জ): এশিয়ান গেমস ফুটবলে বাংলাদেশ কখনোই দ্বিতীয় রাউন্ড বা নক আউট আউট পর্ব খেলেনি। বাংলাদেশের দৌড় গ্রুপ পর্ব পর্যন্ত।

এবার নক আউট পর্ব খেলার স্বপ্ন বাংলাদেশের। আজ এশিয়ান গেমস ফুটবলে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ কাতার। জাকার্তায় কাতারকে হারালেই বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো উঠে যাবে নক আউট পর্বে।

জাভার প্যাট্রিওট চন্দ্রভাকা স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৬টায় দুদলের ম্যাচটি শুরু হবে। এশিয়ান গেমসে এবার ‘বি’ গ্রুপে খেলছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ এরই মধ্যে খেলেছে উজবেকিস্তান ও থাইল্যান্ডের বিপক্ষে। দুই ম্যাচের দুটিতে জিতে এরই মধ্যে দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করেছে উজবেকিস্তান। শেষ ম্যাচে কাতারকে হারালে এবং উজবেকিস্তানের কাছে থাইল্যান্ড হারলে কিংবা ড্র করলে গ্রুপ ‘বি’থেকে দ্বিতীয় হয়ে নক আউট পর্বে ওঠে যাবে জেমি ডের দল। দুই ম্যাচে ২ পয়েন্ট থাইল্যান্ডের। বাংলাদেশ ও কাতারের সমান এক পয়েন্ট করে।

হার দিয়ে এশিয়ান গেমসে যাত্রা শুরু বাংলাদেশের। উজবেকিস্তান ৩-০ গোলে হারায় বাংলাদেশকে। পরের ম্যাচে ১-১ গোলে ড্র করে থাইল্যান্ডে বিপক্ষে। প্রথমে এগিয়ে থেকেও পরে গোল হজম করে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দল এর আগে কখনোই কাতারের বিপক্ষে খেলেনি। প্রতিপক্ষ সম্পর্কে খুব বেশি ধারণাও নেই বাংলাদেশের। তবে জাতীয় দল তিনবার মুখোমুখি হয়ে হেরেছে দুটিতে আর ড্র এক ম্যাচে। ড্র করেছিল ১৯৭৯ সালে এএফসি এশিয়ান কাপে।

ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে দুই দলের পার্থক্য অনেক। বাংলাদেশ যেখানে রয়েছে ১৯৪তম স্থানে। সেখানে কাতারের অবস্থান ৯৮ এ। র‌্যাঙ্কিংয়ে বড় পার্থক্য থাকলেও বাংলাদেশের তরুণরা স্বপ্ন দেখাচ্ছে নতুন করে। কাতারকে হারিয়ে নক আউট পর্বে খেলতে আত্মবিশ্বাসী জামাল, তপুরা।

একটি জয়ই বদলে যেতে পারে দৃশ্যপট। ঝিমিয়ে থাকা ফুটবল জেগে উঠতে পারে নতুন উন্মাদনায়। চ্যালেঞ্জটা নিতে হবে ফুটবলারদের। তাদের পারফরম্যান্স পাল্টে দিতে পারে পুরোনো ব্যর্থতার ইতিহাস।