সোনারগাঁ(আজকের নারায়নগঞ্জ): ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চলন্তবাসে যৌন হয়রানির অভিযোগে কাঁচপুর এলাকা থেকে যাত্রীবাহি বাসের হেলপার মো.মিলন মিয়া (৩২)কে আটক করেছে সোনারগাঁ থানা পুলিশ।

বৃহস্পতিবার(২৯ অক্টোবর) সকালে ৯৯৯ ফোন পেয়ে সোনারগাঁ থানা পুলিশ বাসটিসহ হেলপারকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এ ঘটনায় শিশুটির মা বাদি হয়ে সোনারগাঁ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলায় শিশুটির মা উল্লেখ করেন, বৃহস্পতিবার ভোর ৫টার দিকে তিনি তার এক শিশু মেয়ে (১১) ও এক ছেলেকে নিয়ে ঢাকা মেট্রো ব – ১৪-১৩৮৬ নাম্বারের একটি যাত্রীবাহি বাসে হাজীগঞ্জ থেকে ঢাকার উদ্দ্যেশে রওয়ানা দেন। বাসে উঠে তিনি তার ছেলেকে নিয়ে একটি সিটে ও মেয়েকে পাশের আরেকটি সিটে বসতে দেন। পথিমেধ্যে তিনি তার ছেলে ও পাশের সিটে বসা তার মেয়েও ঘুমিয়ে পড়েন। সকাল ৯টার দিকে কাঁচপুর মেট্রো সিএনজি পাম্পের সামনে এসে বাসটি পৌছালে যাত্রীদের চেঁচামেচিতে তার ঘুম ভেঙ্গে যায়। ঘুম ভেঙ্গে শুনতে পান বাসের হেলপার মিলন মিয়া তার ঘুমন্ত মেয়ের বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিয়ে যৌন হয়রানী করছে।

এ সময় যাত্রীদের চেষ্টায় ৯৯৯ নাম্বারে ফোন দিলে সোনারগাঁ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে হেলপার মিলন ও বাসটিকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

সোনারগাঁ থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, ৯৯৯ ফোন পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে অভিযুক্ত বাস হেলপারকে আটক করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।