বন্দরে খান মাসুদের সহযোগিতায় ব্যবসায়ী ফেরত পেলেন হারানো ৫ লাখ টাকা

বন্দর(আজকের নারায়নগঞ্জ): অবশেষে  বন্দর থানা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খান মাসুদের সহযোগিতায়  হোসিয়ারী ব্যবসায়ী  ফেরত পেলেন  তার হারানো  ৫ লাখ টাকা ।   শনিবার বিকেল বন্দর ১নং খেয়া ঘাটস্থ খান মাসুদের অফিসে তিনি স্বহস্তে এ হারিয়ে যাওয়া টাকা প্রকৃত মালিককে বুঝিয়ে দেন ।

জানা গেছে, পাওনাদারের টাকা দিতে জমি বিক্রি করে নগদ ৫ লক্ষ টাকা নিয়ে ১৮ আগস্ট শনিবার সকাল ১০টায় থানার সিরাজ শাহ্ মোল্লা বাড়ি এলাকা থেকে ক্ষুদ্র হোসিয়ারী ব্যবসায়ী রকিব উদ্দিন ইজিবাইকে করে বন্দর ১নং খেয়াঘাটে আসেন। ভুলবসত তিনি টাকার ব্যাগ অটো গাড়িতে রেখে চলে যায়।

পরে টাকার কথা মনে পড়লে অনেক খোঁজাখুঁজি করে কোথাও টাকা না পেয়ে ইজিবাইক চালকের বাড়িতে গিয়ে অনেক জিজ্ঞাসাবাদ করলেও চালক টাকার কিছুই জানেনা বলে সাফ জানিয়ে দেয়। টাকার মালিক টাকা না পেয়ে দিশেহারা হয়ে পরে। টাকার শোকে প্রায় স্ট্রোক হওয়ার মতো অবস্থা রকিব উদ্দিনের।

রকিব উদ্দিন এক পর্যায় তার পরিচিত ব্যবসায়ী লুৎফর রহমানকে জানালে সে তাঁর বন্ধু খান মাসুদকে বিষয়টি অবহিত করেন।

খান মাসুদ বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে নেন এবং তিনি সাথে সাথে বেবিস্ট্যান্ডে দায়িত্বরত রাজু,সাদ্দাম,আমানুল্লাহ ও নুরুজ্জামানকে নির্দেশ প্রদান করেন ইজিবাইক চালক যেখানেই থাকুক তাকে ধরে নিয়ে আসতে। দীর্ঘ ৫ ঘন্টা খোঁজাখুজির পর বন্দর শাহী মসজিদ এলাকা থেকে চালক কিবরিয়াকে ধরে নিয়ে খান মাসুদের বাসস্থানে নিয়ে আসে।

প্রথমে টাকা নেয়ার কথা অস্বীকার করে চালক কিবরিয়া। পরে খান মাসুদের ব্যপক জিজ্ঞাসাবাদে চালক কিবরিয়া অকপটে টাকার কথা স্বীকার করে নেয়। চালকের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী নিজ ঘরে লুকিয়ে রাখা ৫ লাখ টাকা উদ্ধার করে নিয়ে আসে।

রাজু,সাদ্দাম,আমানুল্লাহ, আলম চাঁন ও নুরুজ্জামানদ্বয়ের অক্লান্ত প্রচেষ্টায় খোঁয়া যাওয়া পুরো ৫লাখ টাকা মালিকের হাতে বুঝিয়ে দেন খান মাসুদ। এ সময় টাকার প্রকৃত মালিক রকিব উদ্দিন খান মাসুদকে প্রানভরে দোয়া করেন।