মুসলিম যুবতীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষনঃ ফতুল্লায় শুভ হালদার গ্রেফতার

ফতুল্লা(আজকের নারায়নগঞ্জ): প্রেমে জাত-কুল মানে না এমনি প্রবাদ সত্য করে মুসলিম সম্প্রদায়ের যুবতীর প্রেমে পড়েছিল হিন্দু সম্প্রদায়ের শুভ। পরবর্তীতে ৬ মাসের প্রেমের পরিনতি ঘটাতে বিয়ের প্রলোভনে যুবতীর সাথে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্কেও লিপ্ত হয়েছিল লম্পট শুভ। তবে বিপত্তি বাধে যখন বিয়ের পীড়িতে বসতে অস্বীকৃতি জানিয়ে সটকে পড়ার চেষ্টা চালায় শুভ।

শুক্রবার(২৩ অক্টোবর) সকালে ধর্ষিতা সেই ১৭ বছর বয়সী কিশোরী থানায় অভিযোগ দায়ের করলে সেইদিন রাতেই লম্পট শ্রী শুভ কুমার হালদার(২০)কে গ্রেফতার করে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ।

ঘটনাটি ঘটেছে ফতুল্লার পাকিস্তান খাদঁ এলাকায়।

গ্রেফতারকৃত ধর্ষক শ্রী শুভ কুমার হালাদার শুভ সিরাজগঞ্জ জেলার ছলংগা থানার উত্তরপাড়া গ্রামের গোপাল চন্দ্র হালদারের ছেলে। তারা ফতুল্লা থানার পাকিস্তান খাদঁ এলাকার মোতালেব মিয়ার বাড়ীতে ভাড়া থাকতো।

ঘটনার বিবরনীতে এবং এজাহারের ভিত্তিতে জানা যায়, ধর্ষিতা কিশোরী বিভিন্ন মানুষের বাসায় ঝিয়ের কাজ করে। কিশোরী ও গ্রেফতারকৃত ধর্ষক ফতুল্লা থানার পাকিস্তান খাদঁ এলাকায় মোতালেব মিয়ার বাসায় ভাড়া থাকার সুবাদে গত ৪/৫ মাস ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।কিশোরী মুসলমান হলেও গ্রেফতারকৃত ধর্ষক হিন্দু সম্প্রদায়ের। গ্রেফতারকৃত ধর্ষক নিজ ধর্ম ত্যাগ করিয়া কিশোরীকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে কয়েক মাসে তার সাথে একাধিকবার শারিরীক সম্পর্ক করে।

সর্বশেষ চলতি মাসের এক তারিখে কিশোরীর অমতে ধর্ষক তাকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে জোরপূর্বক ধর্ষন করে। কিশোরী তাকে বিয়ের কথা বললে ধর্ষক তাকে বিয়ে করবেনা বলে অস্বীকার করে। এতে করে কিশোরী শুক্রবার  ফতুল্লা থানায় লম্পট প্রেমিক শ্রী শুভ কুমার হাওলাদারের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে ধর্ষককে গ্রেফতার করে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.আসলাম হোসেন জানান, যুবতী থানায় বাদি হয়ে মামলা দায়ের করলে শুক্রবার শুভকে গ্রেপ্তার করা হয়। শুভ সিরাজগঞ্জ জেলার ছলংগা থানার উত্তরপাড়া গ্রামের গোপাল চন্দ্র হালদারের ছেলে। শুভকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।