বন্দরে তিতাসের মামলা থাকা অবস্থায় পুনরায় অবৈধ সংযোগ লাগালেন প্রবাসীর স্ত্রী

Exif_JPEG_420

বন্দর প্রতিনিধি(আজকের নারায়নগঞ্জ):  বন্দরে অতিরিক্ত গ্যাসের চুলা সংযোগের মাধ্যমে অবৈধ ভাবে গ্যাস ব্যবহারের অপরাধে সৌদি প্রবাসী শহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে তিতাস কর্তৃপক্ষ মামলা দায়েরের মাস না পুরাতেই পূনরায় অবৈধ ভাবে সংযোগ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রবাসীর স্ত্রী ফারজানা বেগমের বিরুদ্ধে। এলাকার কিছু অর্থলোভি ব্যক্তিদের টাকা দিয়ে এ সংযোগ দেওয়া হয়।

বন্দর থানা সুত্রে জানতে পারা যায় গত ৮ সেপ্টম্বর মঙ্গলবার রাতে তিতাসের উপ-ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মোঃ মিজবাহ উর রহমান বাদী হয়ে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং- ১০(৯)২০ ধারা- ২০১০ সালের বাংলাদেশ গ্যাস আইনের ১০.১ (চ) ১৯।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বন্দর থানার ১০৭ এসএস সাহা রোড এলাকার জনৈক শহিদুল ইসলাম বহু বছর ধরে সৌদি আরবে প্রবাসী হিসেবে জীবন যাপন করে আসছেন। এ সুবাদে তার স্ত্রী ফারজানা বেগম গত ৮ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সকালে তার নিজবাড়ীতে গ্যাসের কাজ করার সময় বন্দর থানা পুলিশ চোরাই ভাবে গ্যাস সংযোগ নেওয়ার সন্দেহে নবীগঞ্জ কদম রসুল এলাকার মৃত বাচ্চু মিয়ার ছেলে স্বপন ও নবীগঞ্জ পূর্বপাড়া এলাকার মৃত আব্দুল করিম মিয়ার ছেলে ফারুককে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে বন্দর থানা পুলিশ বিষয়টি তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষকে অবগত করলে সংবাদ পেয়ে তারা দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসে এবং বন্দর থানায় মামলা করেন। এলাকার কিছু অর্থলোভি ব্যক্তিদের সহযোগিতায় ১ মাস না যেতেই পূনরায় সেই অবৈধ সংযোগ লাগান প্রবাসীর স্ত্রী ফারজানা বেগম।

এব্যাপারে প্রবাসীর স্ত্রী ফারজানা বেগমের সাথে মোবাইল ফোনে আলাপ কালে সংযোগ লাগানোর কথা শিকার করেন।

এব্যাপারে তিতাসের প্রকৌশলী জাফরুল আলম বলেন, অবৈধ সংযোগ কেউ ব্যবহার করতে পারবে না আমরা তার বিরুদ্ধে আবার ব্যবস্থা নেবো তবে পুলিশ যদি একটু খেযাল রাখতো তবে অবৈধ সংযোগকারিরা এত সাহস পেতো না।

এব্যাপারে বন্দর থানার ওসি ফরুদ্দিন ভুঞা বলেন, এটা তিতাসের ব্যাপার তারা মামলা দিক আমি মামলা নেবো।