শ্যালিকাকে কটুক্তির প্রতিবাদ করায় ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে জখম

আড়াইহাজার(আজকের নারায়নগঞ্জ): নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে শ্যালিকাকে কটুক্তির প্রতিবাদ করায় এক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে জখম করেছে বখাটেরা।

বুধবার (১৪ অক্টোবর) বেলা বারোটার দিকে আড়াইহাজার উপজেলার শান্তির বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, আড়াইহাজার উপজেলার পার্শ্ববর্তী সোনারগাঁও উপজেলার বারদী ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নং ওয়ার্ড সদস্য মোঃ ওমর ফারুক (৩২) বাসা থেকে তার শ্যালিকা মোসাঃ তাহমিনা কে সাথে নিয়ে তাহমিনার জন্য কলেজের বই কিনার শান্তির বাজারে গেলে বারদী ইউনিয়নে চাঙ্গাকান্দি গ্রামের মোঃ বাদল ভূঁইয়া, মোঃ রাসেল মিয়া, মোঃ শরীফ ও রমজান আলী নামের বখাটে তাহমিনা কে কটুক্তি করে।

এসময় তাহমিনার দুলাভাই ইউপি সদস্য ওমর ফারুক প্রতিবাদ করলে বখাটেদের সাথে বাক-বিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। পরে ওমর ফারুক তার শ্যালিকাকে অটো রিক্সায় করে বাসায় পাঠিয়ে দিয়ে বাজারে এস কে টেলিকম নামে সোহেল মিয়ার মোবাইল ফোন ও বিকাশের দোকানে যায়।

পরবর্তীতে ক্ষিপ্ত হয়ে বখাটে বাদল ভূঁইয়া, রাসেল মিয়া, শরীফ, রমজান আলী সহ আরো সাত-আটজন মিলে লাঠিসোঁটা, লোহার রড, রামদা,চাকু সহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মোবাইলের দোকানে থাকা ইউপি সদস্য ওমর ফারুককে উপর্যুপরি কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। পরে স্থানীয়রা ইউপি সদস্য ওমর ফারুককে উদ্ধার করে প্রথমে আড়াইহাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন।

এসময় বখাটেরা বিকাশের দোকান ভাংচুর করে এবং দোকানে থাকা ২ লাখ ৩০ হাজার টাকা ও ৫ টি মোবাইল সেট নিয়ে যায়।

বারদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জহিরুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

এ ব্যাপারে আড়াইহাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন, থানায় এধরণের কোনো ঘটনায় কেউ অভিযোগ দেয়নি, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।