নাসিম ওসমানের মৃত্যুর রহস্য নিয়ে সেলিম ওসমানের প্রশ্ন !

স্টাফ রিপোর্টার(আজকের নারায়নগঞ্জ):  নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের প্রয়াত সাংসদ এ কে এম নাসিম ওসমানের মৃত্যু স্বাভাবিক নাকি হত্যা তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন তাঁরই ভাই বর্তমান সাংসদ এ কে এম সেলিম ওসমান৷ তিনি বলেন, আমার ভাইয়ের মৃত্যু স্বাভাবিক নাকি হত্যা তা আমি জানি না৷

বৃহস্পতিবার (১৬ আগস্ট) দুপুর ৩টায় নবীগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহামানের ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগ কর্তৃক আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এ সংশয় প্রকাশ করেন৷

এ সময় সেলিম ওসমান বলেন, একবার ভেবে দেখেন তো, যার পেছনে আমরা কাজ করছি সেই শেখ হাসিনার মনের অবস্থাটা কেমন৷ এই দিনগুলোতে তিনি কিভাবে থাকেন? আমি রিয়ালাইজ করতে পারি৷ কারণ এক সময় আমার দাদা এই এলাকায় এমএলএ ছিলেন৷ এক সময় আমার ভাই এই এলাকায় এমপি ছিলেন৷ আমি আমার বাবাকে হারিয়েছি স্বাভাবিক মৃত্যুতে৷ কিন্তু আমার ভাইয়ের মৃত্যু স্বাভাবিক নাকি হত্যা তা আমি জানি না৷ কারণ যেভাবে তাকে খুনি বলে সম্বোধন করা হয়েছিল, মানসিক ভাবে অত্যাচার করা হয়েছিল৷ সেভাবে একটা মানুষ বেচে থাকতে পারে না৷

তিনি আরো বলেন, সেই পরিবার থেকেই আবার আমার মা আমাকে এখানে নির্বাচন করার জন্য নির্দেশ দিলো৷ আমার মাকে জিজ্ঞেস করলাম, মা আপনি কি দেখেন নাই আপনার একটা ছেলে মারা গেলো৷ তিনি বললেন, আমি আমার আরেকটা ছেলেকেও মারা যেতে দেখতে চাই৷ আল্লাহ যেন সেই দিনটা দেখার জন্য বাচিয়ে রাখে৷ তোমার দাদার স্বপ্ন, তোমার বাবার স্বপ্ন, তোমার ভাইয়ের স্বপ্ন তোমাকে বাস্তবায়ন করতে হবে৷

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, বন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পিন্টু বেপারী, বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহীন মন্ডল, মহানগর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও জেলা ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি চন্দন শীল, ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম এ রশিদ, জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আবু জাহেল, কলাগাছিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন প্রধান, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মো. জুয়েল হোসেন, সহ সভাপতি আনিসুল ইসলাম, পলাশ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ও নাসিক ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন আহমেদ দুলাল প্রধান, ২৪ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সুজন প্রমুখ৷