করোনামুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরলেন জেলা পরিষদ সদস্য মোস্তফা দম্পতি

 

ফতুল্লা(আজকের নারায়নগঞ্জ): দীর্ঘ ১ মাস করোনার সাথে যুদ্ধ করে অবশেষে করোনা মুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরলেন জেলা পরিষদের ৪নং ওয়ার্ডের সদস্য মোস্তফা হোসেন চৌধুরী দম্পতি। গত ০৫ সেপ্টেম্বর তিনি এবং ০৭ সেপ্টেম্বর তার স্ত্রীর করোনা পজিটিভ হয়, পরে তারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ছিলেন।

অবশেষে আজ সোমবার (৫ অক্টোবর ) মোস্তফা হোসেন চৌধুরী এবং তার স্ত্রী কুর্মিটোলা হাসপাতালে দীর্ঘ ১ মাস চিকিৎসা নিয়ে পুরোপুরি করোনামুক্ত ও সুস্থতা লাভ করে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মোস্তফা হোসেন চৌধুরী নিজেই। এ সময় বাড়ীতে পৌঁছালে পরিবারের পক্ষ থেকে সন্তানেরা তাদেরকে ফুলের মালা পরিয়ে আনন্দ উপভোগ করে।

একই সাথে এ কঠিন সময়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক ডা: ফরিদ হোসেন মিয়া ( হাসপাতাল ও ক্লিনিক) ও কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জামিলুর রহমান এর প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশের পাশাপাশি যারা তার জন্য দোয়া কামনা করেছেন তিনি তাদের সকলের প্রতিও অশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন।

জানা যায়, করোনা মহামারীর কঠিন সময়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের ৪নং ওয়ার্ডের সদস্য মোস্তফা হোসেন চৌধুরী সাধারণ মানুষের পাশে থেকে তাদের সেবা করেছেন। মোস্তফা চৌধুরীর নেতৃত্বে করোনায় মৃত্যুবরণ কারী ৫০-৬০ জন মৃত ব্যক্তির সৎকার করেছেন টিম মোস্তফা-১৯। এছাড়া করোনায় আক্রান্তদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্য ও নগদ অর্থ সহ সব ধরনের সহযোগীতায় মাঠ পর্যায়ে নিরলস পরিশ্রম করেছেন। এসকল কাজ করতে গিয়ে গত ০৫ সেপ্টেম্বর প্রথমে তিনি এবং ০৭ সেপ্টেম্বর তার স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত হন। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর তারা দুজনেই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৯ সেপ্টেম্বর তাদের দুজনেরই করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। তবে ডাক্তারের পরামর্শে পুরোপুরি শংকামুক্ত হওয়ার জন্য গতকাল রোববার পর্য়ন্ত তারা আইসোলেশনে ছিলেন। আজ সোমবার ৫ অক্টোবর সকালে চিকিৎসকরা মোস্তফা দম্পতিকে হাসপাতাল ত্যাগ করে বাড়ি যাওয়ার ছাড়পত্র প্রদান করেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মোস্তফা হোসেন চৌধুরী ও তার স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পরও টিম মোস্তফা-১৯ এর কার্যক্রম অব্যাহত ছিলো।