নজরুল নেতৃত্ব কাদের হাতে?

– শেখ সাদী খান

নজরুল-সঙ্গীত নিয়ে কাজ করছে এরকম দুটো সংগঠনের নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন জেগেছে। নজরুল একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা তালিম হোসেন স্বাধীনতা বিরোধী পাকিস্তানের দালাল বুদ্ধিজীবী হিসেবে বাহাত্তরে জেল খেটেছেন। বর্তমানে এর প্রধান মিন্টু রহমান নিজেকে মুক্তিযোদ্ধা দাবী করলেও সম্প্রতি এক স্ট্যাটাসে জানিয়েছেন যে একাত্তরের নয় মাস তিনি তালিম হোসেনের সহযোগী ছিলেন।

নজরুল একাডেমিতে বর্তমানে যাওয়া আসা আছে জামাতপন্থী বুদ্ধিজীবীদের, এর পর্ষদেও আছেন স্বাধীনতা বিরোধী একটি পরিবার। তালিম হোসেনের এক কন্যার বিরুদ্ধে ৭৫ এর ঘাতকদের সঙ্গে ঘনিষ্টতার অভিযোগ আছে।

অপর সংগঠন নজরুল-সঙ্গীত শিল্পী পরিষদ। এর সভাপতি ফেরদৌসী রহমান। যিনি ১৯৭১ সালে অখণ্ড পাকিস্তানের পক্ষে অন্যতম স্বাক্ষরকারী। ঢাকা টিভি কেন্দ্র চালু হয়েছিলো তার গান দিয়ে, এরকম একটি মিথ বাজারে চালু থাকলেও তা সত্য নয়। প্রকৃতপক্ষে কোরান তেলওয়াৎ দিয়েই ঢাকা টিভি কেন্দ্র চালু হয়েছিলো। এই সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সুজিত মুস্তফা, যার পিতা স্বাধীনতার পর দালাল আইনে গ্রেফতার হয়েছিলেন। সুজিত মুস্তফা দীর্ঘদিন নজরুল-সঙ্গীতের সাথে যুক্ত থাকলেও এখন পর্যন্ত একটি একক এলবাম প্রকাশ করেন নি। নীলুফার ইয়াসমিন প্রতিষ্ঠিত সংগঠনটি দিন দিন ক্ষয়িষ্ণু হতে হতে প্রায় স্মৃতির খাতায় চলে যাচ্ছে। ২০১৬ সালে আব্বাসউদ্দিনের জন্মদিনে নজরুল মেলা আয়োজন করে সংগঠনটি এর গ্রহণযোগ্যতা পুরোপুরি হারিয়েছে। সেই নজরুল মেলা আসলে আব্বাসউদ্দিন পরিবারের জীবিত সদস্যদের মেলা হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছিলো। এছাড়া এই পরিবারের এক সদস্যের সাথে সাবেক স্বৈরাচার এরশাদের ঘনিষ্টতার অভিযোগ আছে।

বর্তমান স্বাধীনতার সপক্ষের সরকার এসব অভিযোগ খতিয়ে দেখবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

*লেখক শুদ্ধ সঙ্গীতের ছাত্র। রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক এক্টিভিস্ট।