প্রবাসীদের বাস্তব জীবনের গল্প- অবদান

 

বিনোদন ডেস্ক(আজকের নারায়নগঞ্জ): সোলেমান মিয়া , দীর্ঘ ১৫ বছর পর প্রবাস থেকে ছুটিতে গ্রামে আসে। গ্রামে আসার পর সে উপলব্ধি করতে পারে , পরিবার , সমাজ , আত্নীয় স্বজনদের প্রতি তার অবদান কতটুকু । সমাজে সন্মান পেতে হলে , শুধু বয়স বাড়লেই হয় না , তার সাথে প্রয়োজন মোটা অংকের টাকার । তেমনই এক চমৎকার গল্প নিয়ে, চ্যানেল আইয়ের জন্য সম্প্রতি শুটিং সম্পন্ন হলো , ‘‘অবদান ‘’ নামের টেলিভিশন কাহিনীচিত্রটির ।

গত ঈদে , ‘‘বাবারা সব পারে ‘’র ব্যপক সাফল্যর পর আবারো পাপ্পু রাজের রচনায় , গল্প প্রধান নাটকের অন্যতম গুনি নির্মাতা এস এম কামরুজ্জামান সাগর নির্মান করলেন জীবন বোধের এই টেলিভিশন কাহিনীচিত্র । পূবাইলের মনোরম পরিবেশে এই কাহিনীচিত্রটিতে অভিনয় করেছেন – ফজলুর রহমান বাবু , সাইকা আহমেদ , মিষ্টি জাহান , শিবলী নওমান , সাজ্জাদ স্বপন, হাসি মন প্রমুখ । গল্প প্রসঙ্গে , ফজলুর রহমান বাবু বলেন , সাগরের নির্মাণ নিয়ে নতুন করে কিছু বলার নেই , কেননা তার গল্প বাছাই খুব সুন্দর হয়। আর সেক্ষেত্রে পাপ্পু রাজ খুব চমৎকার ভাবে চিত্রনাট্য লিখেছে । এছাড়াও গুছানো একটি ইউনিটে কাজ করে , খুব ভাল লেগেছে আমার । নিঃসন্দেহে ভাল একটি কাজ হয়েছে।

সাইকা আহমেদ বলেন , সাগর ভাইয়ের কাজ মানেই চমৎকার আবহে একটি অর্থ বহ মেসেজ দেয়া । যা তিনি খুব সুনিপুন ভাবে দিতে জানেন । মিষ্টি জাহান বলেন , গল্পে আমি ফজলুর রহমান বাবু ভাইয়ের মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছি। চরিত্রটি করে , আমি খুব তৃপ্তি পেয়েছি। এটা সাগর ভাইয়ের সাথে আমার প্রথম কাজ । কাজটি নিয়ে আমি বেশ আশাবাদী । শিবলী নওমান বলেন , এক কথায় আমার কাছে পুরো ব্যাপারটাই দারুন লেগেছে। গুনি মানুষদের সানিধ্যে কাজ করতে পারলে ,অনেক কিছু শেখা যায়। যেমন গল্প , তেমনই দক্ষতার সাথে নির্মান হয়েছে বলে আমি মনে করি ।কাহিনিচিত্রটি প্রযোজনা করেছেন ১৯৫২ এন্টারটেইনমেন্ট’র কর্ণধার সাজু মুনতাসির।

‘‘অবদান ‘’ টেলিভিশন কাহিনীচিত্রটি আগামীকাল ২৫ সেপ্টেম্বর, দুপর ৩:০৫ মিনিটে দেখা যাবে , চ্যানেল আইয়ের পর্দায় ।