অবশেষে সুর পাল্টালেন শ্রমিকলীগ নেতা শুক্কুর মাহমুদ

 নগর সংবাদ(আজকের নারায়নগঞ্জ): অবশেষে সুর পাল্টে ফেললেন নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর-বন্দর) আসনে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন প্রার্থী কেন্দ্রীয় শ্রমিকলীগের সভাপতি ও জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ। এই ঘোষণা বেশ কয়েকটি অনুষ্ঠানে তিনি দিয়েছিলেন।

গত ৭ জুলাই বন্দরে ৫০০ শয্যা হাসপাতাল সুবিধাসহ শ্রমজীবী হোস্টেল নির্মাণ কাজের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সেলিম ওসমানের সামনেই নারায়ণগঞ্জের ৫ আসনে নৌকার প্রার্থী চেয়ে বক্তব্য দিয়েছেন। কিন্তু হঠাৎ তিনি সুর পাল্টে ফেললেন।

মঙ্গলবার (১৪ আগস্ট) দুপুরে নগরীর বাপ্পী চত্বরে মহানগর শ্রমিকলীগ কর্তৃক আয়োজিত জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে শোকসভায় তিনি বলেন, শেখ হাসিনা যাকে মনোনয়ন দেবেন তার পক্ষেই কাজ করবো।উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ এ কে এম সেলিম ওসমান।

এ সময় শুক্কুর মাহমুদ আরো বলেন, গত নির্বাচনে আমাকে জননেত্রী শেখ হাসিনা মনোনয়ন দিয়েছিল। তারপর উনি বলেছেন, জাতীয় পার্টি আমাদের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করেছে আপনি ছেড়ে দেন। আমি ওনার এক কথায় ছেড়ে দিয়েছি। আগামীতেও শেখ হাসিনা যাকে মনোনয়ন দিবেন আমরা তার পাশেই থাকবো। দেশে উন্নয়নের জোয়ার বইছে। আজকে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য শীতলক্ষ্যা ব্রীজ তৈরি করা হবে। আমরা আশা করবো, শীতলক্ষ্যা ব্রীজটা নাসিম ওসমানের নামে হবে।
এরআগে ৭ জুলাই বন্দরে তিনি সেলিম ওসমানের সামনেই বলেন, আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আজকের এই সভা থেকে আন্তরিক ভাবে ধন্যবাদ জানাই। আগামী নির্বাচনে, ২০১৮ সালের শেষ যে নির্বাচন হবে সেই নির্বাচনে আমরা নারায়ণগঞ্জের পাঁচটি আসনেই বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে আমরা তাকে (প্রধানমন্ত্রীকে) নৌকা মার্কা দিয়ে নির্বাচিত করবো। এটা আমাদের সকলের দাবি।
সে সময় তিনি উপস্থিত সেলিম ওসমানকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আমার ভাতিজা (সেলিম ওসমান) হয়তো বলতে পারেন আমি শুুধু নৌকার কথাই বললাম। গত নির্বাচনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে ৫ এ মনোনয়ন দিয়েছিলো। কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কথায় আমি আসন ছেড়ে দিয়েছি। আমি আর কোনো কথা বলি নাই। আমি মানুষের কল্যাণের জন্য কাজ করতে চাই। আমি নারায়ণগঞ্জবাসীর কল্যানে কাজ করতে চাই। আপনাদের পাশে থাকতে চাই।