এক সপ্তাহে ৩ গুনী অভিনেতার মৃত্যু,শোবিজ অঙ্গনে শোক

বিনোদন ডেস্ক(আজকের নারায়নগঞ্জ): করোনাভাইরাসের আক্রমণে বিশ্বজুড়ে থেমে আছে শুটিং, বন্ধ হয়ে গেছে থিয়েটার, প্রাণহীন হয়ে গেছে শোবিজ অঙ্গন। শুধু এতেই থেমে থাকেনি ভাইরাসটি। করোনায় সংক্রমিত হচ্ছেন বহু তারকা। প্রাণ যাচ্ছে একের পর এক শিল্পী, অভিনেতা-অভিনেত্রী কিংবা নির্মাতা সহ শোবিজ অঙ্গনে জড়িত খ্যাতিমানদের।

শুধু করোনাতেই নয়, অন্যান্য রোগে ভুগেও এ বছর মারা গেছেন বহু গুণী ব্যক্তিত্ব। বাংলাদেশেও হচ্ছে না ব্যতিক্রম। কেউ কেউ কটাক্ষ করে দুই হাজার বিশ সালকে বলছেন ‘দুই হাজার বিষ’! গত সাত দিনের মধ্যেই বাংলাদেশ হারিয়েছে তিন গুণী অভিনেতাকে।

দেশের অভিনয় জগতে শোকের ছায়ায় গত ৯ সেপ্টেম্বর বুধবার  মারা গেলেন নন্দিত অভিনেতা কেএস ফিরোজ। তার শোক ভুল তে না ভুলতেই একইদিনে মাত্র কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে মারা গেলেন জনপ্রিয় দুই শক্তিমান অভিনেতা। একজন হানিফ সংকেত সঞ্চালিত ‘ইত্যাদি’ অনুষ্ঠানের নিয়মিত শিল্পী ও সাবেক সিনিয়র সহকারী সচিব মহিউদ্দিন বাহার, অন্যজন চলচ্চিত্রের নামকরা খল অভিনেতা ও ডাক বিভাগের সাবেক কর্মকর্তা সাদেক বাচ্চু।

সোমবার প্রথম মৃত্যুর খবরটা আসে ভোর পাঁচটায়। সে সময় মারা যান অভিনেতা মহিউদ্দিন বাহার। এই অভিনেতার পরিবার জানায়, তিনি দীর্ঘদিন ধরে হার্টের ও কিডনি রোগসহ নানা সমস্যায় ভুগছিলেন। সোমবার ভোরে মারাত্মক অসুস্থ বোধ করলে অভিনেতাকে শাহবাগের বারডেম হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মহিউদ্দিন বাহার পরিবারের সঙ্গে ঢাকার দয়াগঞ্জে নিজ বাড়িতে থাকতেন। তার পরিবারে স্ত্রী, দুই ছেলে এবং এক মেয়ে রয়েছে। মৃত্যুকালে এই অভিনেতার বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর। আজ সোমবার আসরের নামাজ বাদে দয়াগঞ্জে জানাজা শেষে তাকে সেখানকারই একটি কবরস্থানে দাফন করা হবে।

মহিউদ্দিন বাহারের মৃত্যুর ঠিক সাত ঘণ্টা বাদে আসে খল অভিনেতা সাদেক বাচ্চু মৃত্যুর খবর। রাজধানীর মহাখালীর ইউনিভার্সাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বেলা ১২টার কিছু সময় পর তিনি মারা যান। এই অভিনেতার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন তার স্ত্রী শাহানা এবং সহকারী পরিচালক মাসুদ রানা।

সাদেক বাচ্চু করোনায় আক্রান্ত ছিলেন। গত ৬ সেপ্টেম্বর জ্বর ও তীব্র শ্বাসকষ্ট নিয়ে তিনি প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। সেখানে তার করোনা পরীক্ষা করালে ১১ সেপ্টেম্বর সেটির ফল পজিটিভ আসে।

এর পরদিনই সাদেক বাচ্চুকে মহাখালীর ইউনিভার্সাল হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। তিনি এই হাসপাতালটির কোভিড ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন ছিলেন। সোমবার দুপুর ১২টার পর সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

এরমধ্যে সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, নির্মাতা নাসিরউদ্দিন ইউসুফ লেখেন, ‘এ কেমন সময় ! অভিনেতা সাদেক বাচ্চু এবং মহিউদ্দিন বাহার চির বিদায় নিলেন। করোনার করাল গ্রাসে একে একে প্রিয় মানুষের মৃত্যতে বিপর্যস্ত আমরা। শোক ছাড়া কিইবা করার আছে আমাদের।’

ছোটপর্দার জনপ্রিয় মুখ অভিনেত্রী শাহনাজ খুশী লিখেছেন, ‘এক সপ্তাহে তিনজন গুণী অভিনেতার প্রস্থান! এমনিতেই আমাদের অভিনয় জগতে এমন প্রবীন, অভিজ্ঞ অভিনয় শিল্পী তেমন নাই বললেই চলে! তার মধ্যে ভয়াবহ এ মৃত্যুর ছোবল, মাত্র সাতদিনের মধ্যে ছিনিয়ে নিলো এমন বিজ্ঞজনদের! জানিনা, সামনে আর কী কী অপেক্ষা করছে। আপনাদের এ প্রস্থান এক বিরাট শুন্যতা তৈরি করলো! গভীর শোক এবং সম্মান জানাই,আত্মার শান্তি কামনা করি’