‘দেড় লাখিয়া’ ঈদের জামাত করতে চান শামীম ওসমান

আজকের নারায়নগঞ্জ ডেস্কঃ   কিশোরগঞ্জের আলোচিত শোলাকিয়া ঈদের জামাতের চেয়েও বড় দেড় লাখিয়া  জামাত করতে চান নারায়নগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান।  তিনি বলেন, আমি নারায়ণগঞ্জে একটি ঈদ জামাতের আয়োজন করতে চাই। যেখানে দেড় লক্ষাধিক মানুষ এক সাথে ঈদের জামাতে অংশগ্রহন করতে পারবে। নারায়ণগঞ্জের এ জামাতকে সারা বাংলাদেশের মানুষ দেড়লাখিয়া জামাত হিসেবে জানবে।

রোববার (১২ আগষ্ট) বেলা সাড়ে ১২টায় নারায়ণগঞ্জ ক্লাব মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক, জেলার ৭ শতাধিক ইমাম ও জনপ্রতিনিধিদের সাথে এক আলোচনা সভায় তিনি এ আগ্রহ প্রকাশ করেন।

শামীম ওসমান বলেন, মানুষ বড় জামাতে অংশগ্রহন করতে চেষ্টা করে। কারন লাখো মানুষের মধ্যে যদি একটা হাতও আল্লাহ কবুল করেন তাহলে একজনের উছিলায় সবার দোয়া আল্লাহ রাব্বুল আলামীন হয়তো কবুল করে নিবেন। শোলাকিয়াতে লক্ষ লক্ষ মানুষের জামাত হয়।

সে কারনে নারায়ণগঞ্জ থেকেও মানুষ ঈদের জামাতে অংশগ্রহন করতে যায়। কারো কোন আপত্তি না থাকলে শহরের পৌর ঈদগাহ ময়দান, ওসমামী স্টেডিয়াম এবং খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে এক সাথে একটি বৃহৎ ঈদ জামাতের আয়োজন করা যেতে পারে।

এ ব্যাপারে তিনি জেলার উপস্থিত ৭ শতাধিক মসজিদের ঈমামদের মতামত নেন এবং জেলা প্রশাসক ও সিটি করপোরেশনের কাছে সহযোগিতা চান। ঈমামরা আলোচনা করে সম্মতি দিলে জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়া ঈদ জামাতের আয়োজনের ব্যাপারে সব ধরনের সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দেন।

শামীম ওসমান বলেন, এই ঈদ জামাতের আয়োজনে প্যান্ডেল বাবদ ৫০ থেকে ৬০ লক্ষ টাকা খরচ হবে তা আমার পক্ষ থেকে আমি দিয়ে দেব। তবে ইচ্ছা করলে যে কেউ এত শরীক হতে পারেন। তিনি বলেন, আমরা এখানে সুন্দর করে একটা আয়োজন করতে চাই যেখানে ঢোকার পরে মানুষের মনে এমন একটা অনুভূতি হয়, আল্লাহর এবাদত করতে এসেছি।

এ সময় শামীম ওসমান আগামী ঈদুল আযহার এই বৃহৎ জামাতে সকল রাজনৈতিক দল ও সামাজিক সংগঠনের সবাইকে এক সাথে অংশগ্রহন করার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, এই মিলনমেলায় এসে আমরা সবাই যদি সবার সাথে বুক মিলাই আল্লাহ সবার মধ্যে ভালোবাসা সৃষ্টি করে দেবেন। পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জবাসীর উপরও রহমত বর্ষিত হবে।

এ আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক রাব্বি মিয়া, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক ফজলুল হক, মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ্ নিজাম, ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এম শওকত আলী, বন্দর থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম এ রশিদ, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুজিবর রহমান, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাফায়েত আলম সানী, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাফেল প্রধান, মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু, ১৬নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নাজমুল আলম সজল, ১৪ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর শফিউদ্দিন প্রধানসহ বিভিন্ন মসজিদ-মাদ্রাসার ইমাম, অধ্যক্ষ এবং আওয়ামীলীগের অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।