ফতুল্লার ব্যাংক কলোনিতে টেটাবিদ্ধ করে যুবক খুন!

ফতুল্লা(আজকের নারায়নগঞ্জ):  ফতুল্লায় মনির হোসেন (৩৫) নামে যুবককে টেঁটাবিদ্ধ করে খুনের অভিযোগ উঠেছে ।তবে কে বা কারা তাকে টেটাবিদ্ধ করেছে তা জানা যায়নি।

৭ আগস্ট মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ফতুল্লার বাংককলোনী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত মনির হোসেন  ফতুল্লার ব্যাংক কলোনী এলাকার নুরুদ্দিন মিল্কির ছেলে। সে ফেরি করে মালামাল বিক্রি করতো।

নিহতের বড় বোন মিনা আক্তার জানান, মনিরের প্রথম স্ত্রী ফারজানা আক্তার নুপুর সরকারি চাকরি পাবার পর তাকে ছেড়ে চলে যায়। তারপর সে পারুল নামের একজনকে দ্বিতীয় বিয়ে করে। পারুলেরও এটি দ্বিতীয় বিয়ে ছিল। তার প্রথম স্বামী ছিল বাবুল। পারুলের এক মেয়ে রয়েছে নাম রিয়া, সে বিবাহিত।

তিনি জানান, রিয়ার স্বামী সিফাত প্রায় সময়ই এই বাড়িতে বেড়াতে এসে বলে যেত যে পারুল মনিরের উপর নির্যাতন করে। মনিরকে যেন পারুলের কাছে আসতে দেয়া না হয়, নাহলে তাকে মেরে ফেলবে। এর মধ্যেই আবার বাবুলের কাছে ফিরে যায় পারুল। এরপর থেকেই পারিবারিক লেনদেন নিয়ে পারুল ও মনিরের মধ্যে শুরু হয় ঝগড়া। সিফাত সন্ধ্যায় দোকানে যায় কিছু কেনাকাটা করতে তখনি খবর পায় কে বা কারা মনিরকে টেঁটা মেরেছে। পরে মানুষ দৌড়াদৌড়ি করে তাকে নিয়ে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

খানপুরে অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা হাসপাতালের জরুরী বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডাক্তার সরোয়ার হোসেন জানান, টেঁটাটি তার পেটের বামপাশে বিঁধেছে। এতে করে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়ে সে মারা যায়।

ফতুল্লা মডেল থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) দিদার জানান, খবর পেয়ে হাসপাতালে এসে লাশ দেখতে পেয়েছি। নিহতের পরিবারের অভিযোগও শুনেছি। এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।