নৌ-মন্ত্রী পদত্যাগ করলে আমারে মন্ত্রী বানাবা?

নগর সংবাদ(আজকের নারায়নগঞ্জ):   নৌ-মন্ত্রী শাহজাহান খান পদত্যাগ করলে কারে মন্ত্রী বানাবে, আন্দোলনকারীদের উদ্দেশ্যে এমন প্রশ্ন করেছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমান। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে কৌতুহলবশতঃ বলেছেন কারে মন্ত্রী বানাবা? আমারে মন্ত্রী বানাবা?

নিরাপদ সড়কের দাবিতে নারায়ণগঞ্জের শিক্ষার্থীদের ৬ষ্ঠ দিনের আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা অবস্থান নিয়েছিলো নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনের ফুটপাতে। সেখানে অবস্থিত বিকেএম্‌ইএ কার্যালয়ে যাওয়ার প্রক্কালে সামনে পড়ে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন কর্মসূচী।  এ সময় সেলিম ওসমান কথা বলেন শিক্ষার্থীদের সঙ্গে।

সেলিম ওসমান আন্দোলনরত দুই শিক্ষার্থীর কাছে তাদের দাবি সম্পর্কে জানতে চাইলে অপ্রস্তুত হয়ে পরে শিক্ষার্থীরা। সবগুলো দফা বলতে না পারলেও তাদের একজন বলে উঠে, নয় দফার প্রথম দফা হচ্ছে নৌ-মন্ত্রীর পদত্যাগ করতে হবে। সেলিম ওসমান তখন হেসে দিয়ে বলেন, নৌ-মন্ত্রী পদত্যাগ করলে, তাহলে কারে মন্ত্রী বানাবা? আমারে মন্ত্রী বানাবা ?

শিক্ষার্থীরা বলেন, চাষাড়া শহীদ মিনারে গত দুদিন যাবৎ ছাত্রলীগের অবস্থানের কারনে প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে আন্দোলনের উদ্দেশ্যে জড়ো হয় শিক্ষার্থীরা। তাদের হাতে ছিলো বিভিন্ন দাবি সম্বলিত প্ল্যাকার্ড। সেখান দিয়েই নিজ কার্যালয়ে যাচ্ছিলেন সেলিম ওসমান।

এসময় তিনি আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন। জানতে চান তাদের আন্দোলনের দফা সম্পর্কে। শিক্ষার্থীরা অপ্রস্তুত হয়ে সবগুলো দফা না বলতে পারলে সেলিম ওসমান ওসমান দুষ্টুমির ছলে এক শিক্ষার্থীর গাল টেনে ধরেন। বলেন, দফা সম্পর্কে জানো না, আন্দোলন করতে আসছো?

পরবর্তীতে ভবনে যাওয়ার সময় আরেক শিক্ষার্থীর কাছে দফা জানতে চাইলে সেই শিক্ষার্থী ফুটওভার ব্রিজ, স্পিড ব্রেকার নির্মাণ, নৌ-মন্ত্রীর পদত্যাগসহ দফাগুলো তুলে ধরেন।

সেলিম ওসমান তখন শিক্ষার্থীর উদ্দেশ্যে প্রশ্ন রেখে বলেন, মাথা ব্যাথা হলে কি মাথা কেটে ফেলতে হয়? তারপর তিনি সেখান থেকে বিকেএমইএ ভবনে চলে যান।

প্রসঙ্গত, গত রবিবার রাজধানীর এয়ারপোর্ট সড়কে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে জাবালে নূর পরিবহনের বাসের চাপায় দিয়া খানম মিম ও আবদুল করিম রাজিব নামে শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হন। এরপর থেকে নিরাপদ সড়কসহ নয় দফা দাবিতে রাজপথে নামে শিক্ষার্থীরা।