পাওনা টাকা চাওয়ায় কুকুর লেলিয়ে নির্যাতন!

ফতুল্লা(আজকের নারায়নগঞ্জ): পাওনা টাকা চাওয়ার কারণে শহরের জামতলায় পালিত কুকুর লেলিয়ে দিয়ে নির্মম নির্যাতন চালানো হয়েছে এক রিক্সাচালকের উপর। কুকুরের কামড়ে ক্ষতবিক্ষত আহত হয়েছেন রিক্সাচালক। শহরের জামতলায় আব্দুর রহিমের সাত তলা বাড়ীর ছাদে শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টায় ঘটে এ ঘটনা। আব্দুর রহিমের বাড়ির প্রহরী মহিউদ্দিন রিক্সাচালক আব্দুর রাজ্জাকের কাছ থেকে ৭হাজার টাকা ধার নেয়। গতকাল শুক্রবার ছিল সেই টাকা পরিশোধের তারিখ। আহত আব্দুর রাজ্জাক লালমনিরহাট জেলার মৃত আজিজুর রহমানের ছেলে। সে জামতলার আমতলা এলাকার আনিসের বাড়ির ভাড়াটিয়া।

এলাকাবাসীরা জানান, রিক্সাচালক আব্দুর রাজ্জাকের কাছ থেকে আব্দুর রহিমের বাড়ির প্রহরী মহিউদ্দিন ৭ হাজার টাকা ধার নেয়। অনেকদিন টাকা পরিশোধে সে টালবাহানা করতে থাকে। সর্বশেষ শুক্রবার ৪ আগষ্ট টাকা পরিশোধের সময় দেয় প্রহরী মহিউদ্দিন। রাত ১০টায় টাকা দেবে বলে ডেকে নিয়ে যায় রাজ্জাককে। এসময় বাড়ির মালিক আব্দুর রহমানের ছেলে রুপু অভিযোগ তুলে রিক্সাচালক আব্দুর রাজ্জাক প্রহরী মহিউদ্দিনের মেয়ের বিরুদ্ধে অশ্লীল কথা বলেছে। এ অভিযোগে রিক্সাচালককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা দেয়ার নির্দেশ দেয়। এসময় তাকে চর থাপ্পর দিয়ে টাকা নিয়ে আসতে ছেড়ে দেয়।

পরে রাত সাড়ে ১১টায় প্রহরী মহিউদ্দিন ও তার স্ত্রীকে পাঠিয়ে দ্বিতীয় দফায় রূপু ডেকে নিয়ে আসে রিক্সাচালক মহিউদ্দিনকে। এসময় রুপু, তার এক বন্ধু ও প্রহরী মহিউদ্দিন নীচ তলা থেকে মারতে মারতে সাত তলার ছাদে নিয়ে যায়। এসময় রাজ্জাকের স্ত্রী বাড়ির মালিক আব্দুর রহমানের স্ত্রীর পায়ে হাতে ধরে তাকে ছেড়ে দিতে অনুরোধ করে। তার অনুরোধের কর্ণপাত না করে রাজ্জাককে সাত তলা বাড়ির ছাদে নিয়ে যায়। এসময় রুপুর পালিত ২টি বিদেশী কুকুর ছেড়ে দেয়। এসময় পালিত কুকুর ২টি রাজ্জাককে নখ ও কামড়ে সর্বাঙ্গ ক্ষতবিক্ষত হয়ে যায়। এসময় রাজ্জাক আর্তচিৎকার করলেও আশপাশের কেউ এগিয়ে আসেনি।

শনিবার এলাকাবাসী চাঁদা তুলে আহত রাজ্জাককে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়। রাজ্জাক হাসপাতাল থেকে ফেরার পথে খবর পেয়ে ফতুল্লা থানা পুলিশ রাজ্জাককে নিয়ে যায়।
ফতুল্লা থানার ওসি শাহ মঞ্জুর কাদের জানান, বিষয়টি তাদের নজরে এসেছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।